সোমবার, ২১ অক্টোবর ২০১৯, ০১:০১ পূর্বাহ্ন

আপনি যদি ভালো একজন পর্যটক হতে চান…

আলোকিত টেকনাফ
  • আপডেট সময় শুক্রবার, ২৭ সেপ্টেম্বর, ২০১৯
  • ১৮ বার পঠিত

পর্যটন ডেস্কঃ-

বহুদিন থেকেই পরিকল্পনা করছেন সামনের শীতে দেশের বাইরে যাবেনই। কিন্তু হাজারো বিড়ম্বনা আর ভালো পরিকল্পনার অভাবে যাওয়া হয়ে উঠছে না। টাকাপয়সা যা জমানো তা আবার খরচ হয়ে যায়। ধুর, কেন এমন হচ্ছে কে জানে। অথচ আশেপাশের সবাই কত সুন্দর ঘুরে আসছে বাইরে থেকে। শুধু আপনিই পারছেন না। কারণ আপনার হয়ত পরিকল্পনায় কোনো ঘাটতি রয়েছে। কিন্তু আপনি চাইলেই ভালো একজন ভালো পর্যটক হয়ে উঠতে পারেন। এজন্য আপনার জন্য থাকছে কিছু টিপস-

মানচিত্র সম্পর্কে জানুন

ভ্রমণে বের হওয়ার আগে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ কাজ হলো ভূগোলটা ঠিকমতো জেনে নেওয়া। সেটা দেশে হোক কিংবা দেশের বাইরে অন্য কোথাও। সবার আগে মানচিত্রটা ভালো করে দেখে নিতে হবে। তাহলে আপনি বুঝতে পারবেন কোথা থেকে আপনাকে শুরু করতে হবে বা আসলে আপনি কী দিয়ে শুরু করতে চান। কারো আগ্রহ থাকে দর্শনীয় স্থান দেখার প্রতি, কারো থাকে ভাষা এবং সংস্কৃতির প্রতি, কেউ রাজনৈতিক ইতিহাসকে গুরুত্ব দিয়ে থাকেন। নিজের লক্ষ্য ঠিক করুন, শুধুই ঘুরে বেড়ানো পর্যটকের কাজ নয়। বরং ভ্রমণ থেকে শেখাটাই পর্যটকের কাজ।

সঠিক পরিকল্পনা

হুট করে ঘুরতে বেরিয়ে যাওয়াটা পর্যটকের লক্ষণ নয়। বরং ভেবেচিন্তে সময় বের করে আগে থেকে পরিকল্পনা করে ঘুরতে যাওয়াটাই একজন পর্যটকের কাজ। আর সেজন্য প্রয়োজন সঠিক পরিকল্পনা। কোথায় কোথায় যাবেন, কয়দিন থাকবেন, থাকার কী ব্যবস্থা, কত টাকা খরচ হবে সব মিলিয়ে নিয়ে বেরিয়ে পড়াটাই একজন ভালো পর্যটকের লক্ষণ।

ভাষা শেখা

শুধু যে নিজের গণ্ডির মধ্যে ঘুরে বেড়াবেন ব্যাপারটা তো সে রকম নয়। পর্যটকদের ঘোরার নেশা কোনো সীমানায় আটকে থাকে না। তাই ঘোরার সুবিধার্থেই কয়েকটি ভাষা শিখে নিতে পারেন। এমন না যে সবগুলো ভাষাই আপনাকে অনর্গল বলতে বা বুঝতে হবে। কাজ চালিয়ে নেওয়ার জন্য যতটুকু দরকার, ততটুকু হলেই চলবে। এতে আপনি যেখানেই যান সেখানকার মানুষের সংস্কৃতি এবং সমাজব্যবস্থা ভালোমতো বুঝতে পারবেন।

টাকা জমানো

ভ্রমণের জন্য অর্থ প্রয়োজন। টাকা না থাকলে ঘুরতে যাওয়ার সুযোগ এলেও কাজে লাগাতে পারবেন না। তাই সঞ্চয়ের অভ্যাস গড়ে তুলুন । বছরের নির্দিষ্ট সময়ে ঘুরতে বেরিয়ে পড়ুন আর তার আগে টাকাটা জমিয়ে ফেলুন যাতে কোনোকিছু মিস না হয় ।

বই পড়ুন

ভালো পর্যটক হতে গেলে আপনাকে লেখাপড়া করতে হবে । প্রচুর বই পড়তে হবে বিভিন্ন দেশের ভূগোল, ভাষা এবং সাহিত্য সম্পর্কে জানতে হলে । সেটা কাগজে বই হোক কিংবা অনলাইনে বসে পড়া হোক। পড়ার অভ্যাস না থাকলে আপনার মধ্যে ভ্রমণের আগ্রহ তৈরি হবে না ।

বেরিয়ে পড়ার আগে

 

সময় আর সুযোগ এক করতে পারলে বাউণ্ডুলে মন বেরিয়ে পড়তে চায় নতুন কিছু দেখতে। তা সে দেশে হোক বা বিদেশে। অপরিকল্পিতভাবে বেরিয়ে পড়ার মধ্যেও আছে অ্যাডভেঞ্চার। কিন্তু অনাকাঙ্ক্ষিত বিপদ এড়াতে কিছুটা পরিকল্পনা করে যাওয়াই উত্তম । ঝামেলা এড়াতে হয়ত দ্বারস্থ হয়েছেন ট্যুর এজেন্টের কাছে। তাও নিজের কিছু পরিকল্পনা রাখুন।

খোঁজ খবর নিন

যেখানে যেতে চান আগে থেকেই সেখানকার আবহাওয়া ও রাজনৈতিক পরিস্থিতি জেনে নিন। সেখানে পরিচিত কেউ থাকলে তো ভাল, না থাকলে ইন্টারনেটে খুঁজুন, পেয়ে যাবেন । সাহায্য নিতে পারেন মানচিত্র অথবা গুগুল ম্যাপের । স্ট্রিটভিউ-এ পেয়ে যেতে পারেন আগাম বিবরণ।

পকেট সাবধান

ট্যুরে গিয়ে এটিএম সুবিধা পাবেন কিনা তা জেনে রাখুন। সঙ্গে নগদ কিছু টাকা রাখাও নিরাপদ। সব টাকা একসঙ্গে না রেখে আলাদা আলাদা ব্যাগ বা চেম্বারে রাখুন। তবে অবশ্যই একটা প্ল্যান-বি রেডি রাখবেন। বিপদে আপদে কাজে দিবে।

পাসপোর্ট ও ভিসার কপি সঙ্গে রাখুন

দেশের বাইরে গেলে পাসপোর্ট এবং ভিসা, ভ্রমণ বিমা ইত্যাদি ফটোকপি ও স্ক্যান করে সঙ্গে রাখুন। তবে তা কোনোভাবেই লাগেজে রাখতে যাবেন না। লাগেজ হারিয়ে গেলে বেশ কঠিন সময়ের মুখোমুখি হতে হবে বিদেশ ভ্রমণের ক্ষেত্রে । নথিপত্র স্ক্যান করে মেইলেও অ্যাটাচ করে রাখতে পারেন।

প্রাচুর্যতা পরিহার করুন

কোথাও ভ্রমণে গিয়ে বিত্ত-বৈভব কিংবা আপনার প্রাচুর্যতা দেখাতে গেলে হিতে বিপরীত হতে পারে ।দামি জিনিসপত্র বিশেষ করে স্বর্ণালঙ্কার ও ক্যামেরার কারণে ছিনতাইকারীদের টার্গেট হতে পারেন আপনি।

সঙ্গে রাখুন প্রযুক্তি

নিতে ভুলবেন না হাতঘড়ি, মোবাইল ফোন, ক্যামেরা, চার্জার, ই-বুক রিডার, পোর্টেবল চার্জার, গান শোনার যন্ত্র। তবে দরকার না পড়লে শুধু শুধু ব্যাগ ভারি করবেন না । ক্যামেরার সঙ্গে প্রয়োজন না হলে একাধিক লেন্স না নেওয়াই ভাল।

ফেরা

নিয়ন্ত্রিত পরিকল্পনা থাকলে ফিরতি টিকেট কিনে রাখুন । না হলে অন্তত কোথায় এবং কিভাবে ফেরত আসবেন সেটা নিশ্চিত হয়ে নিন ।

বিদেশ ভ্রমণে সতর্কতা

নির্দোষ আচরণও আপনাকে বিপদে ফেলতে পারে । বিশ্বের বিভিন্নস্থানে ভ্রমণে গেলে আপনার ভিন্ন ভিন্ন পরিস্থিতির মুখোমুখি হতে হবে। কোনো দেশে আপনার যে আচরণ ভদ্রতা বলে গন্য হবে অন্য দেশে সে আচরণটিই চরম অভদ্রতা বা হুমকি প্রদান বলে ধরে নেওয়া হবে। তবে স্বাভাবিক কিছু ভদ্রতাসূচক কথাবার্তা যেমন, ‘হ্যালো’, ‘গুডবাই’, ‘প্লিজ’, ‘থ্যাংক ইউ’, ‘এক্সকিউজ মি’ ইত্যাদির চল প্রায় সব দেশেই আছে। এ বিষয়ে এক প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে ফক্স নিউজ। কোনো দেশ ভ্রমণে যাওয়ার আগে এসব বিষয়ে খবর নিয়ে নেবেন আগে থেকেই।

পর্যটন মানে শুধু কোথাও গিয়ে ভিড় জমানো না। এক্ষেত্রে আপনাদের সেই দেশের সংস্কৃতির আদ্যোপান্ত জানতে হবে।

আপনার মন্তব্য দিন

নিউজটি শেয়ার করুন..

এ জাতীয় আরো খবর..
© All rights reserved © 2016-2019 | Alokitoteknaf.com
Theme Customized By Shah Mohammad Robel