এনজিওর প্রাইভেট কারে মিলল ২০ হাজার ইয়াবা, আটক ২

Rohinga.jpg

নিজস্ব প্রতিবেদক। 

কক্সবাজার শহরের লিংক রোড এলাকা থেকে এনজিওর স্টিকার লাগানো একটি প্রাইভেট কার থেকে বিশেষ কৌশলে লুকানো ২০ হাজার ইয়াবাসহ দুইজনকে আটক করেছে র‍্যাব-১৫।

মঙ্গলবার (৯ জুলাই) বিকাল ৩টায় গোপন সংবাদের ভিত্তিতে র‌্যাব-১৫ অভিযান চালিয়ে তাদের আটক করে।

আটককৃতরা হলেন- চট্টগ্রামের পাঁচলাইশ থানার চকবাজার এলাকার কামরুল ইসলাম ভূঁইয়ার ছেলে মোহাম্মদ দৌলত আজিম ভূঁইয়া (৩৯), যার স্থায়ী বাড়ি চট্টগ্রামের হাটহাজারী এলাকার কাতাল গঞ্জে। অন্যজন হলেন লক্ষীপুর জেলার লক্ষীপুর থানাধীন রামানন্দী এলাকার চাঁদখালীর আনোয়ার হোসেনের ছেলে রুবেল রানা (২২)।

প্রাইভেট কারটিতে ‘হিউম্যানিটি ফার্স্ট সার্ভিং ম্যানকাইন্ড’ এনজিওর লোগো লাগানো ছিল। তবে র‌্যাবের দাবি, গাড়িটি কোনো এনজিওর নয়। ধৃতরা র‌্যাবকে জানিয়েছেন, গাড়ির রং উঠে যাওয়ায় স্টিকারটি লাগানো হয়েছে।

র‌্যাব-১৫ ব্যাটালিয়নের অধিনায়ক মেজর মোহাম্মদ মেহেদী হাসান এই তথ্য নিশ্চিত করে বলেন, কক্সবাজার থেকে চট্টগ্রামের দিকে একটি প্রাইভেট কারে ইয়াবা পাচার হচ্ছে এমন সংবাদের ভিত্তিতে র‌্যাবের রামুস্থ ১৫ ব্যাটালিয়নের একটি চৌকস দল চেক পোস্ট বসিয়ে তল্লাশি শুরু করেন। তল্লাশির এক পর্যায়ে ‘হিউম্যানিটি ফার্স্ট সার্ভিং ম্যানকাইন্ড’ এনজিওর স্টিকার লাগানো একটি প্রাইভেট কারকে থামানোর সংকেত দেয়। এ সময় গাড়ির চালক ও গাড়িতে থাকা আরও একজন দৌঁড়ে পালানোর চেষ্টা করলে র‌্যাব সদস্যরা তাদের ধরে ফেলেন।

মেজর মেহেদী হাসান জানান, ধৃত দুইজনকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হলে তারা শিকার করে গাড়িটিতে বিশেষ কায়দায় লুকানো অবস্থায় ইয়াবা রাখা আছে। র‌্যাব সদস্যরা তল্লাশি করে ২০ হাজার পিস ইয়াবা উদ্ধার করেন।

ধৃত ওই দুই ব্যক্তি দীর্ঘদিন যাবৎ কক্সবাজার এলাকা থেকে ইয়াবা কিনে চট্টগ্রামসহ দেশের বিভিন্ন জেলায় ইয়াবা বিক্রি করে আসছে বলে দাবি করে র‌্যাব-১৫।

আপনার মন্তব্য দিন

Share this post

scroll to top