চট্টগ্রামে প্রথমবারের মতো অনুষ্ঠিত হলো দুরন্ত চট্টগ্রাম মিনি ম্যারাথন

56652799_10219382350337239_8590976447986794496_o.jpg

চট্রগ্রাম অফিস ঃ- 

বন্দরনগরী চট্টগ্রামে প্রথমবারের মতো অনুষ্ঠিত হলো মিনি ম্যারাথন দৌড় প্রতিযোগিতা-২০১৯। দুরন্ত চট্টগ্রামের উদ্যোগে ‘দৌড়াবে চট্টগ্রাম দেখবে বিশ^’- শিরোনামে শুক্রবার সকালে এই মিনি ম্যারাথন অনুষ্ঠিত হয়। ঢাকা চট্টগ্রামসহ দেশের বিভিন্নস্থান থেকে রেজিস্ট্রেশনের মাধ্যমে ম্যারাথনে অংশ নিয়েছে ৭ শতাধিক বিভিন্ন বয়সী নারী পুরুষ প্রতিযোগি। সকাল সাড়ে ৬টায় নগরীর পাঁচলাইশ এন মোহাম্মদ কনভেনশন সেন্টার থেকে ম্যারাথনের শুরু হয়ে ৫ কিলোমিটারের বেশি পথ অতিক্রম শেষে নগরীর সিআরবি শিরিশ তলায় এসে ম্যারাথন সম্পন্ন হয়। এতে পুরুষ ক্যাটাগড়িতে ম্যারাথনে সবার আগে ফিলিশিং পয়েন্টে পৌঁছে চ্যাম্পিয়ন হয়েছেন মোহাম্মদ তাম্মাম হোসেন এবং মেয়েদের ক্যাটাগড়িতে চ্যাম্পিয়ন হয়েছেন ঢাকা থেকে অংশ নেয়া একমাত্র নারী প্রতিযোগি হামিদা আকতার জেবা। প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে বিজয়ীদের হাতে পুরস্কার ও ক্রেস্ট তুলে দেন চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দিন।

স্মিতা চৌধুরীর উপস্থাপনায় সমাপনি অনুষ্ঠানে অতিথি হিসেব আরো উপস্থিত ছিলেন, ওয়ার্ড কাউন্সিলর গিয়াস উদ্দিন, উম্মে হাবিবা, হাইড আউট ও হাবিব তাজকিরাজের চেয়ারম্যান সৈয়দ রুম্মান আহাম্মেদ, বেলপেপার রেস্টুরেন্টের কর্ণধার ও মিনি ম্যারাথনের ইভেন্ট পার্টনার নাসির উদ্দিন সোহাগ এবং দুরন্ত চট্রগ্রামের মিডিয়া কো-অর্ডিনেটর তরুণ সাংবাদিক শাহ্‌ মুহাম্মদ রুবেল। বক্তব্য রাখেন দুরন্ত চট্টগ্রামের চেয়ারম্যান কামরুল ইসলাম শাকিল, উম্মে হানি প্রমুখ। চট্টগ্রামে প্রথমবারের মতো আয়োজিত এই মিনি ম্যারাথনের পাওয়ার্ডবাই স্পন্সর ইয়ামাহা।

মিনি ম্যারথনের আয়োজক দুরন্ত চট্টগ্রামের উদ্যোক্তা কামরুল ইসলাম শাকিল জানান, মিনি ম্যারাথন চট্টগ্রামে প্রথম আয়োজন। মুলত চট্টগ্রামের অপরূপ সৌন্দর্য্য, নানা উন্নয়নে বদলে যাওয়া গ্রীণ সিটি চট্টগ্রামকে সারা বিশে^র কাছে তুলে ধরার পাশাপাশি একটি স্বাস্থ্য সচেতন নাগরিক জীবনে মানুষকে উদ্বুদ্ধ করার লক্ষ্যে এই মিনি ম্যারাথনের আয়োজন করা হয়েছে। কামরুল শাকিল জানান, সারা বিশে^ মিনি ম্যারাথন একটি বহুল জনপ্রিয় ইভেন্ট। বন্দরনগরী চট্টগ্রামে এর আগে কখনো এমন আয়োজন হয়নি।
নগরীর মুরাদপুর, দুই নাম্বার গেইট, জিইসি, দামপাড়া, ওয়াসা, লালখান বাজার, টাইগার পাস হয়ে দীর্ঘ ৫ কিলোমিটার পথ অতিক্রম করে নগরীর সিআরবি এলাকায় গিয়ে শেষ হয়।

আপনার মন্তব্য দিন

Share this post

scroll to top