রবিবার, ১৭ নভেম্বর ২০১৯, ০৪:০৭ পূর্বাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম

দক্ষিণ ডিককুল এলাকায় জোর করে স্থাপনা নির্মাণ : বাঁধা দেয়ায় হামলায় আহত-২

আলোকিত টেকনাফ
  • আপডেট সময় বৃহস্পতিবার, ৭ নভেম্বর, ২০১৯
  • ৮৮ বার পঠিত

নিজস্ব প্রতিবেদক :

জোর করে জমি দখল এবং অবৈধ স্থাপনা নির্মানে বাধা দেয়ায় কক্সবাজার সদরের ঝিলংজায় দক্ষিণ ডিককুল এলাকায় দুইজনকে কুপিয়ে ও পিটিয়ে আহত করেছে দখলবাজরা।

বৃহস্পতিবার (৭ নভেম্বর) বিকাল ৪ টায় এই ঘটনা ঘটেছে। আহত ব্যক্তিদেরকে কক্সবাজার জেলা সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

এ ঘটনায় কক্সবাজার সদর মডেল থানার এসআই কামালের নেতৃত্বে একদল পুলিশ অভিযান চালিয়ে দুইজনকে আটক করেছে বলে জানা গেছে। এর আগে গত সোমবার (৪ নভেম্বর) দখলবাজ চক্রের বিরুদ্ধে কক্সবাজার সদর মডেল থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করলেও দখলবাজ চক্র তাদের অপতৎপরতা অব্যাহত রাখে।

আহত ব্যক্তি হলেন-দক্ষিন ডিককুল এলাকার বাসিন্দা মৃত ফজল আহমদের ছেলে ছৈয়দ আলম ও তার বোন।

আহত ছৈয়দ আলম জানান, আমাদের বাবার ০.১৩ একর জমির আন্দরে ০.০৭ একর জমি দীর্ঘ ৪০ বছর যাবত ভোগ করে আসছি। আমার বাবা ফজল আহমদের মৃত্যুর পর ঝিলংজার দক্ষিন ডিককুল এলাকার শামশুল হুদার ছেলে জাহেদুল গনি, রুবায়েদ এবং জাবেদ জমি জোর করে দখলের জন্য পাঁয়তারা করে আসছিল। এবমতাবস্থায়, আমার বাগানের খালি জায়গায় রাতের অন্ধকারে জোরপূর্বক বেআইনিভাবে কিছু জায়গা দখল করে অবৈধ স্থাপনা তৈরি করার জন্য কয়েকটি মাটির গর্ত করলে পরিবারের সদস্যরা এতে বাধা দিই। দখলবাজ চক্র জাহেদুল গনি, রুবায়েদ জাবেদ এবং অজ্ঞাতনামা কয়েকজন আমাদেরকে কুপিয়ে ও পিটিয়ে আহত করে পালিয়ে যায়৷ পরে ৯৯৯ এ অভিযোগ করে র‍্যাব- পুলিশের সহায়তায় কক্সবাজার সদর মডেল হাসপাতালে ভর্তি হয়।

এদিকে এসআই কামাল জানান, বিরোধীয় জমিতে স্থিতি অবস্থা বজায় ও কোন ধরনে স্থাপনা নির্মাণ না করার জন্য উভয় পক্ষকে নির্দেশ দেয়া হয়েছে।

কক্সবাজার সদর মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) সৈয়দ আবু মোহাম্মদ শাহজাহান কবির ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, এ ঘটনায় জাহেদুল গনি এবং জাবেদ নামে দুইজনকে আটক করা হয়েছে। আটককৃতদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে। বিরোধপূর্ণ জায়গায় উভয়পক্ষকে কোন প্রকার স্থাপনা নির্মাণ না করার জন্য বলা হয়েছে।

আপনার মন্তব্য দিন

নিউজটি শেয়ার করুন..

এ জাতীয় আরো খবর..
© All rights reserved © 2016-2019 | Alokitoteknaf.com
Theme Customized By Shah Mohammad Robel