সতীর্থরা প্রাণে বেঁচে যাওয়ায় আল্লাহ্‌’র প্রতি কৃতজ্ঞতা জানালেন সাকিব

image-98048-1552649599.jpg

স্পোর্টস ডেস্কঃ-

নিউজিল্যান্ডের ক্রাইস্টচার্চে মসজিদে বন্দুকধারীদের হামলায় নিহতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৪৯ জন। এই ঘটনায় একজনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। তবে পুলিশ বলছে এই হামলার পেছনে আরও অপরাধীরা জড়িত থাকতে পারে।ডিনস এভে অবস্থিত মসজিদ আল নুর এবং লিনউড এভের লিনউড মসজিদে গোলাগুলির ঘটনায় ৪৯ জনের মৃত্যুর বিষয়টি নিশ্চিত করেছে স্থানীয় বেশ কয়েকটি সূত্র। সতীর্থরা প্রাণে বেঁচে যাওয়ায় মহান আল্লাহ্‌ তা’আলার প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেছেন সাকিব আল হাসান।

হামলার পর নিজেরা নিরাপদে আছেন বলে একাধিক বাংলাদেশের খেলোয়াড় তাদের ফেসবুকে ও টুইটারে পোস্ট দিয়ে জানিয়েছেন। একইসঙ্গে তারা ভয়ঙ্কর অভিজ্ঞতার কথাও জানিয়েছেন। এদের মধ্যে বাংলাদেশ দলের ওপেনার তামিম ইকবাল,মুশফিকুর রহিম, রুবেল হোসেন নিজের টুইটার ও ফেসবুকে স্ট্যাটাস দেন। এবার টাইগারদের টেস্ট ও টি-২০ অধিনায়ক সাকিব আল হাসান তার টুইটার ও ফেসবুকে নিউজিল্যান্ড হামলা নিয়ে পোষ্ট দিয়েছেন।

সাকিব লেখেন,যেকোন ধরনের সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ডই দুঃখজনক। ব্যাপারটা আরও শোচনীয় হয় যখন সন্ত্রাসী কার্যক্রম চালানো হয় কিছু নিষ্পাপ প্রার্থনারত মানুষের উপর।দূর্ঘটনায় নিহত সকল বিদেহী আত্মার শান্তি কামনা করছি৷ কাপুরুষোচিত এই ঘটনায় স্বজন হারানো শোক-সন্তপ্ত পরিবারের প্রতি জানাচ্ছি সমবেদনা।

মহান আল্লাহকে ধন্যবাদ আমাদের দলের প্রত্যেক ক্রিকেটারকে হামলা থেকে নিরাপদে রাখার জন্যে। যত দ্রুত সম্ভব নিরাপদে যেন তারা দেশে ফেরে সেই কামনাই থাকলো।

হামলার পর বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের মুখপাত্র জালাল ইউনুস বার্তা সংস্থা এএফপিকে বলেছেন, বাসে করে দলের বেশিরভাগ সদস্য মসজিদে গিয়েছিল। ঠিক যখন হামলার ঘটনা ঘটে, তারা মসজিদে প্রবেশ করতে যাচ্ছিল। তারা নিরাপদে আছে। কিন্তু মানসিকভাবে তারা হতবাক। আমরা তাদের হোটেল থেকে বের না হওয়ার জন্য নির্দেশনা দিয়েছি।

জানা গেছে, স্থানীয় সময় বিকালে দেড়টার দিকে দু’জন বন্দুকধারী ওই হামলা চালায়। এদের মধ্যে একজন অস্ট্রেলিয়ার নাগরিক বলে ধারণা করা হচ্ছে। যখন তিনি মসজিদে হামলা চালাচ্ছিলেন তখন নিজেই সেই দৃশ্য ভিডিও করেছেন। ওই ভিডিওতে তাকে বলতে শোনা গেছে যে, এটি একটি সন্ত্রাসী হামলা। ক্রাইস্টচার্চ হাসপাতালের বাইরেও গোলাগুলির ঘটনা ঘটেছে।

প্রায় ছয় মিনিট ধরে হামলা চালানো হয়েছে। এক প্রত্যক্ষদর্শী জানিয়েছেন, প্রথমে মসজিদের বাইরে গুলি চালানো হয়েছে। এরপর হামলাকারী মসজিদের ভেতরে ঢুকে এলোপাতাড়ি গুলি ছুড়তে শুরু করে। মেঝেতে পড়ে থাকা মৃতদেহের ওপর একের পর এক গুলি চালিয়ে যায় হামলাকারী। সে প্রায় তিনবার তার গুলি রিলোড করেছে। সে সব দিক থেকেই গুলি ছুড়েছে বলে জানিয়েছেন ওই প্রত্যক্ষদর্শী। হামলার পর ক্রাইস্টচার্চের সব স্কুল বন্ধ করে দেয়া হয়েছে বলে জানিয়েছেন পুলিশ কমিশনার মাইক বুশ।

উল্লেখ্য, মসজিদটির পাশেই হেগলি পার্কে অনুশীলন করছিল বাংলাদেশ জাতীয় ক্রিকেট দল। সেখানেই বাংলাদেশ ও নিউজিল্যান্ড দলের তৃতীয় ও শেষ টেস্ট হওয়ার কথা ছিলো। শনিবার থেকে শুরু হতে চলা ক্রাইশ্চচার্চ টেস্ট বাতিল হওয়ায় দেশে ফিরছে বাংলাদেশ ক্রিকেট দল৷

আপনার মন্তব্য দিন

Share this post

scroll to top