বৃহস্পতিবার, ১৭ অক্টোবর ২০১৯, ০২:২৪ পূর্বাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম
মরিচ্যা যৌথ চেকপোষ্ট ইয়াবাসহ নারী মাদক কারবারি আটক দাম বাড়াতে পচানো হচ্ছে হাজার হাজার বস্তা পেঁয়াজ! কক্সবাজার শহরকে মাদক ও সন্ত্রাস মুক্ত করতে রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দের সহযোগীতা চাইলেন নবাগত ওসি শাহজাহান রিসোর্টের ১১৭ নম্বর কক্ষে ইয়াবা নিয়ে ধরা খেল দুইজন কক্সবাজার শহরকে শতভাগ মাদকমুক্ত করার ঘোষণা দেন নবাগত ওসি শাহজাহান কবির চলচ্চিত্রের উন্নয়নে কাজ করতে শেষ সুযোগ চান ইলিয়াস কোবরা কক্সবাজার ৭১’এ প্রকাশিত সংবাদের একাংশের প্রতিবাদ কক্সবাজার ৭১’এ প্রকাশিত সংবাদের একাংশের প্রতিবাদ নতুন সরকারি কোয়ার্টারে গ্যাস সংযোগ নয়: প্রধানমন্ত্রী ইতিহাস গড়া হলো না বাংলাদেশের

সীগাল পয়েন্টে ট্রলারডুবি, ছয় মরদেহ উদ্ধার

আলোকিত টেকনাফ
  • আপডেট সময় বুধবার, ১০ জুলাই, ২০১৯
  • ৫ বার পঠিত

নিজস্ব প্রতিবেদক। 

কক্সবাজার সৈকতের সীগাল পয়েন্টের সমুদ্র সৈকত থেকে ছয়জনের লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। এ সময় একজনকে জীবিত উদ্ধার করা হয়েছে। বুধবার (১০ জুলাই) ভোররাত সাড়ে তিনটার দিকে এসব মরদেহ উদ্ধার করা হয় বলে জানিয়েছেন কক্সবাজার সদর থানায় ওসি (তদন্ত) মো. খায়রুজ্জামান।

তাদের পরিচয় এখনো শনাক্ত করা যায়নি। এ সময় দুজনকে জীবিত উদ্ধার করা হয়েছে বলে জানা গেছে।

ওসি খায়রুজ্জামান জানান, রাতে সমুদ্র সৈকতে থাকা কর্মীরা সৈকতে মরদেহ ভেসে আসার খবর দিলে পুলিশ সীগাল পয়েন্টে গিয়ে ওই ছয় মরদেহ উদ্ধার করে। তারা রোহিঙ্গা নাকি জেলে এটি নিশ্চিত হওয়া যায়নি। ঘটনাস্থলের একটু দূরে একটি মাছ ধরার নৌকাও উদ্ধার হয়। এতে মাছ ধরার জালও রয়েছে। এদিকে নিহতরা জেলেও হতে পারে বলে ধারণা করছেন ওসি।

নিহতদের মরদেহগুলো কক্সবাজার সদর হাসপাতাল মর্গে রাখা হয়েছে। তাদের পরিচয় শনাক্তের কাজ চলছে বলে উল্লেখ করে ওসি খায়রুজ্জামান আরও বলেন, মরদেহের সংখ্যা বাড়তে পারে। সাগরে ভাসমান মরদেহ দেখা যাওয়ার তথ্য এসেছে। পুলিশের টিম ঘটনাস্থলে পাঠানো হয়েছে।

টুরিস্ট পুলিশ কক্সবাজার জোনের পুলিশ সুপার জিল্লুর রহমান জানান, ভোরে কক্সবাজার সমুদ্র সৈকতে কলাতলি পয়েন্টে একটি মাছধরা ট্রলার ভেসে আসে। ট্রলারে ওই ৬ জনের মৃতদেহ পাওয়া যায়। তাদের শরীর বিকৃত হয়ে গেছে। এ সময় মুমূর্ষু অবস্থায় একজনকে পাওয়া যায়। তাকে সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

এ দিকে স্থানীয়দের ধারণা, মাছ ধরার নিষেধাজ্ঞা চললেও পেটের তাগিদে হয়তো জেলের দল রাতের আঁধারে ছোট বোট নিয়ে সাগরে মাছ ধরতে নামে। বৈরী আবহাওয়ায় বোট উল্টে তাদের মৃত্যু হতে পারে।

উল্লেখ্য, গত ২০ মে থেকে ২৩ জুলাই পর্যন্ত ৬৫ দিন বাংলাদেশী জেলেদের জন্য বঙ্গোপসাগরে মাছধরা বন্ধ রয়েছে। স্থানীয়রা উদ্ধারকৃত জেলেদের শনাক্ত করতে পারেনি। ধারণা করা হচ্ছে এসব জেলে মিয়ানমারের নাগরিক এবং ঝড়ের কবলে পরে তাদের মৃত্যু হয়েছে।

আপনার মন্তব্য দিন

নিউজটি শেয়ার করুন..

এ জাতীয় আরো খবর..
© All rights reserved © 2016-2019 | Alokitoteknaf.com
Theme Customized By Shah Mohammad Robel