শুক্রবার, ০১ জুলাই ২০২২, ০১:৫৭ পূর্বাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম
রোহিঙ্গা ক্যাম্পে নারী ও শিশু নির্যাতন রোধে ৮-এপিবিএন এর হটলাইন চমেক শিশু স্বাস্থ্য বিভাগের প্রধান হলেন অধ্যাপক ডা. রেজাউল করিম অবশেষে শুরু হচ্ছে টেকনাফ-কক্সবাজার সড়কের নির্মাণ কাজ উখিয়া ক্যাম্পে ডাকাতি প্রস্তুতিকালে অস্ত্রসহ ছয় রোহিঙ্গা গ্রেফতার বঙ্গোপসাগরে ভাসমান স্বর্ণ: বদলে দিতে পারে দেশের ভাগ্য! টেকনাফে পাহাড় থেকে অস্ত্রসহ ২ রোহিঙ্গা ডাকাত গ্রেফতার অপহৃত মিয়ানমারের দুই শিক্ষক বিজিপির নিকট হস্তান্তর উখিয়া রোহিঙ্গা সন্ত্রাসীদের গুলিতে তালিকাভূক্ত সন্ত্রাসী নিহত মিয়ানমার থেকে পাচারকালে ১কেজি আইসসহ পাচারকারী গ্রেফতার রোহিঙ্গা ক্যাম্পে ‍‍‌‌‌‌‌‍’বাড়ি চলো’ ক্যাম্পেইন চলছে

কক্সবাজারের খুরুস্কুলে চাচার হাতে স্কুলছাত্রী ধর্ষিত!

Reporter Name
  • Update Time : বৃহস্পতিবার, ১৬ আগস্ট, ২০১৮
  • ২৯৬ Time View

একরামুল হক,স্টাফ রিপোর্টার :

কক্সবাজার সদর উপজেলার খুরুশ্কুল ইউনিয়নের তেতৈয়া এলাকায় চাচার হাতে (বাবার চাচাতো ভাই) অষ্টম শ্রেণীর এক ছাত্রী ধর্ষিত হওয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে। ধর্ষক ওই এলাকার মৃত মোস্তাক আহামদের ছেলে মোঃ ইমতিয়াজ ওরফে হাট্টাইয়া।

মঙ্গলবার রাত ১১টার দিকে এই ঘটনা ঘটে। ধর্ষিতাা খুরুশ্কুল আবুল কাসেম উচ্চ বিদ্যালয়ের ছাত্রী। তাকে কক্সবাজার জেলা সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

ধর্ষিতা ছাত্রীর বাবা জানান, তার এক মেয়েকে কয়েকদিন আগে কক্সবাজার শহরের পাহাড়তলীতে বিয়ে দেন। বাড়িতে ছোট মেয়েকে রেখে তারা স্বামী-স্ত্রী মেয়ের শ্বশুর বাড়িতে বেড়াতে গিয়েছিলেন। রাত হয়ে যাওয়ায় তারা মেয়ের শ্বশুর বাড়িতে থেকে যান।

তার দাবি, বাড়িতে আর কেউ না থাকার সুযোগে তার চাচাতো ভাই বখাটে মোঃ ইমতিয়াজ ওরফে হাট্টাইয়া কৌশলে বাড়িতে ডুকে তার ঘুমন্ত মেয়েকে মুখ চেপে ধরে ধর্ষণ করে। পরে ধর্ষক পালিয়ে গেলে ধর্ষিতার কান্নার শব্দ পেয়ে প্রতিবেশিরা এগিয়ে আসেন। তাদের বিষয়টি জানায় তার মেয়ে।

এদিকে খবর পেয়ে রাতেই মেয়ের শ্বশুর বাড়ি থেকে বাড়িতে ফিরে আসেন ধর্ষিতার বাবা-মা। তারা গিয়ে ধর্ষিতাকে নিয়ে কক্সবাজার সদর মডেল থানায় যান।

ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে স্থানীয় ইউপি সদস্য শেখ কামাল জানান, অভিযোগ পেয়ে বুধবার সকালে কক্সবাজার সদর মডেল থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) মনিরের নেতৃত্বে একদল পুলিশ ধর্ষককে আটক করতে অভিযান চালান। কিন্তু সে এলাকা ছেড়ে পালিয়ে যাওয়ায় তাকে আটক করা যায়নি।

এব্যাপারে কক্সবাজার সদর মডেল থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) মনির বলেন, ‘অভিযোগ পেয়ে আমরা অভিযুক্তকে ধরতে অভিযান চালিয়েছি। কিন্তু তাকে আটক করা যায়নি।

অন্যদিকে মেয়েটি বিষয়টি স্পষ্ট করে বিষয়টি বলতে পারছে না। তাই তাকে মেডিকেল পরীক্ষার জন্য সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। পরীক্ষার প্রতিবেদন পাওয়া পর বিষয়টি আরো স্পষ্ট হবে, দাবি করেন এই পুলিশ কর্মকর্তা।

More News Of This Category
© All rights reserved © 2021 Alokito Teknaf
Handicraft By SHAH