শুক্র. জুলা ৩, ২০২০

আলোকিত টেকনাফ

বিশ্বজুড়ে টেকনাফের প্রতিচ্ছবি

কমেকের প্যাথলজী বিভাগের প্রধানসহ পরিবারের ৮ সদস্য করোনায় আক্রান্ত

১ min read

নিজস্ব প্রতিবেদক

কক্সবাজারে করোনা যুদ্ধে শুরু থেকে যিনি কক্সবাজার মেডিকেল কলেজের ল্যাবে কোভিড-১৯ পরীক্ষায় নিয়োজিত ছিলেন তিনি হলেন ডা. রুপস পাল। কমেকের প্যাথলজী বিভাগের সহকারী অধ্যাপক ও বিভাগী প্রধানের দায়িত্ব পালন করছেন তিনি। এবার তাঁর পরিবারের ৮ জন সদস্যই করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন। সোমবার (০১ জুন) কক্সবাজার মেডিকেল কলেজের পিসিআর ল্যাবে তাদের নমুনা পরীক্ষায় ‘পজিটিভ’ রিপোর্ট আসে। বর্তমানে পরিবারের ৮ জন সদস্যই ‘হোম আইসোলেশনে’ আছেন। বিষয়টি মোবাইলে কক্সবাজার ভিশনকে নিশ্চিত করেছেন ডা. রূপস পাল।
তিনি জানান, করোনাভাইরাস শনাক্ত হওয়ার পর থেকে ঈদগাঁওর বাজার এলাকায় নিজ বাড়িতেই হোম আইসোলেশনে আছেন।
ডা. রূপস জানান, ঘরে থাকা তাঁর শশুর থেকে প্রথমে জ্বর,সর্দি-কাশি দেখা দেয়ার পর গত রোববার সন্দেহভাজন তিনিসহ পরিবারের ৮ সদস্যের নমুনা নেয়া হয়। একদিন পরেই কমেকের ল্যাবে তাদের ৮ জনের করোনাভাইরাস শনাক্ত হয়। এর মধ্যে স্ত্রীর নমুনায় নেগেটিভ আসে। আক্রান্তদের মধ্যে, ডা. রূপস পালের বড় ভাই, ছোট ভাই ও স্ত্রীসহ তাদের বাচ্চারাও আছেন। ডা. রূপস পালের সন্তানদের এখনো কোভিড-১৯ পরীক্ষা করা হয়নি।

কক্সবাজার মেডিকেল কলেজের পিসিআর ল্যাবে দায়িত্ব পালন করা ডা. রূপস পাল পরিবারে আক্রান্ত যাতে দ্রুত সুস্থ হয় সকলের কাছে দোয়া চেয়েছেন। করোনায় এই যুদ্ধে সুস্থ হয়ে আবারও কমেকের ল্যাবে দায়িত্ব পালন করতে পারেন সেই প্রত্যশা করেন তিনি।
প্রসঙ্গত: কক্সবাজার মেডিকেল কলেজের ল্যাবে পহেলা এপ্রিল থেকে কোভিড-১৯ পরীক্ষা শুরু হয়। টানা দীর্ঘ ২ মাস এই ল্যাবেই দায়িত্ব পালন করেছিলেন ডা. রূপস পাল।

আপনার মন্তব্য দিন
error: বাণিজ্যিক উদ্দেশ্যে এই সাইটের কোন উপাদান ব্যবহার করা সম্পূর্ণভাবে নিষিদ্ধ এবং কপিরাইট আইনে দণ্ডনীয় অপরাধ।