সোমবার, ০৪ জুলাই ২০২২, ০৬:৪১ অপরাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম
কক্সবাজারে পুলিশের উপিস্থিতিতে ছাত্রলীগ নেতাকে কুপিয়ে হত্যা টেকনাফে ৭ কোটি টাকার আইস ও ইয়াবা উদ্ধার, আটক ১ টেকনাফ স্থলবন্দর থেকে কর/শুল্ক ফাঁকি দিয়ে পাচারকালে ৭২লাখ টাকার অবৈধ মালামাল জব্দ- গ্রেফতার ৩ উখিয়ায় ৫০ হাজার ইয়াবা উদ্ধার : এক রোহিঙ্গাসহ তিন জন গ্রেফতার রোহিঙ্গা ক্যাম্পে নারী ও শিশু নির্যাতন রোধে ৮-এপিবিএন এর হটলাইন চমেক শিশু স্বাস্থ্য বিভাগের প্রধান হলেন অধ্যাপক ডা. রেজাউল করিম অবশেষে শুরু হচ্ছে টেকনাফ-কক্সবাজার সড়কের নির্মাণ কাজ উখিয়া ক্যাম্পে ডাকাতি প্রস্তুতিকালে অস্ত্রসহ ছয় রোহিঙ্গা গ্রেফতার বঙ্গোপসাগরে ভাসমান স্বর্ণ: বদলে দিতে পারে দেশের ভাগ্য! টেকনাফে পাহাড় থেকে অস্ত্রসহ ২ রোহিঙ্গা ডাকাত গ্রেফতার

গৃহকর্মী থেকে মাইক্রোসফটের ব্র্যান্ড অ্যাম্বাসেডর ফাতেমা (ভিডিও)

Reporter Name
  • Update Time : সোমবার, ১৯ ফেব্রুয়ারী, ২০১৮
  • ৩৫৫ Time View
অনলাইন ডেস্ক|

মাত্র ৯ বছর বয়স ফাতেমার। অভাব অনটনে ছিল তার পরিবার। এক দিন খেলে আরেক দিন ঠিকমত খেতে পারতো না। এমন অবস্থায় তাকে পাঠিয়ে দেয়া হয় মধ্যবিত্ত একটি পরিবারের গৃহকর্মী হিসেবে কাজ করতে।

এভাবে কুড়িগ্রামের নাগেশ্বরী উপজেলায় ফাতেমার প্রায় দু’বছর কেটে যায়। যখন তার বয়স ১১ বছর হলো তখন হঠাৎ তার বাবা-মা ফাতেমাকে ডেকে পাঠায়।

আর তাকে ডেকে পাঠানো হয়েছিল বিয়ে দেয়ার জন্য। ১১ বছর বয়সী ফাতেমার বিয়ে ঠিক হয়েছিল ২৫বছর বয়সী এক যুবকের সঙ্গে।

সম্প্রতি মাইক্রোসফট তাদের ওয়েবসাইটে ফাতেমাকে নিয়ে একটি লেখা প্রকাশ করেছে। যেখানে ফাতেমাকে বরাত দিয়ে তার জীবন কাহিনী বলা হয়েছে।

ফাতেমা মাইক্রোসফটকে বলেছে, আমার সব আনন্দ মাটি হয়ে গেল যখন আমি বুঝলাম আমাকে আসলে বিয়ের জন্য ডেকে পাঠানো হয়েছে। আমার বিয়ের সব আয়োজনও চূড়ান্ত করা হয়। তবে ঠিক আগ মুহূর্তে সেখানে গিয়ে হাজির হয় স্থানীয় একটি বেসরকারি সংস্থার প্রতিনিধিরা।

এই সংস্থাটির নাম আশার আলো পাঠশালা। তারা বাল্য বিয়ের ছোবল থেকে ফাতেমাকে রক্ষা করে। বিয়ে বন্ধ হওয়ার পর ফাতেমার শিক্ষার দায়িত্বও নেয় তারা। তারপরও ফাতেমার বাড়ি থেকে বিয়ের জন্য চাপ আসতে থাকে। ফাতেমাও ছিল দৃঢ় প্রতিজ্ঞ- সে বিয়ে করবে না।

এরপর ফাতেমা চতুর্থ শ্রেণিতে ভর্তি হয়। পিএসসি ও জেএসসিতে জিপিএ-৫ পায়। এখনও সে পড়াশোনা চালিয়ে যাচ্ছে এবং দারিদ্র্য ও বাল্য বিয়ের কবল থেকে তার মতো অন্য মেয়েদের বাঁচাতে কাজ করছে।

এখন অন্য যেসব কিশোরী বাল্যবিয়ের ঝুঁকিতে আছে ফাতেমা তাদের ডিজিটাল দক্ষতার উপর প্রশিক্ষণ দিচ্ছে। মাইক্রোসফট তাকে নিজেদের প্রতিষ্ঠানের ব্র্যান্ড অ্যাম্বাসেডরও বানিয়েছে। এমনকি মাইক্রোসফট ফাতেমাকে নিয়ে একটি ডকুমেন্টারি বানিয়েছে। যা তারা তাদের ইউটিউব চ্যানেলে আপ করেছে।

More News Of This Category
© All rights reserved © 2021 Alokito Teknaf
Handicraft By SHAH