রবিবার, ২৮ নভেম্বর ২০২১, ০৮:০৮ পূর্বাহ্ন

ঘূর্ণিঝড় আম্পানের প্রভাবে কক্সবাজেরে সাগর উত্তাল: প্রস্তুত ৫৭৩ আশ্রয় কেন্দ্র

Reporter Name
  • Update Time : মঙ্গলবার, ১৯ মে, ২০২০
  • ৩ Time View

খাঁন মাহমুদ আইউব
আলোকিত টেকনাফ ডটকম 

প্রবল শক্তি সঞ্চয় করে উপকূলে দিকে ধেঁয়ে আসছে ঘূর্ণিঝড় আম্পান। আবহাওয়া অধিদপ্তরের সর্বশেষ বুলেটিনে কক্সবাজার সমুদ্র বন্দরকে ৬ নম্বর বিপদ সংকেত দেখাতে বলা হয়েছে। সাগর বেশ উত্তাল রয়েছে। ইতিমধ্যে মাছ ধরার সকল ট্রলার উপকুলে ফিরে এসেছে। জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে আপদকালীন সকল প্রস্তুতি সম্পন্ন করা হয়েছে।

কক্সবাজারের জেলা প্রশাসক মো.কামাল হোসেন জানান, ঘূর্ণিঝড় আম্পানের প্রভাবে মানুষকে নিরাপদে রেখে সম্ভাব্য ক্ষয়ক্ষতি কমাতে সব ধরণের প্রস্তুতি নেয়া হয়েছে। জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ে খোলা করা হয়েছে কন্ট্রোল রুম। উপকূলবর্তী অঞ্চলের মানুষদের নিরাপদ আশ্রয়ের জন্য প্রস্তুত রাখা হয়েছে ৫৭৩ টি আশ্রয় কেন্দ্র। পাশাপাশি জরুরী ব্যবহারের জন্য স্কুল-কলেজ,সিপিপির স্বেচ্ছাসেবক ও রেডক্রিসেন্ট সোসাইটির সেচ্ছাসেবকরা প্রস্তুত রয়েছে। এছাড়াও শুকনো খাবার ও ত্রাণ ব্যবস্থার পাশাপাশি সকল ধরনের প্রস্তুতি রাখা হয়েছে। সিভিল সার্জনের নেতৃত্বে প্রয়োজনীয় ওষুধসহ মেডিকেল টিম প্রস্তুত ও প্রস্তুত রয়েছে প্রয়োজনীয় যানবাহন।

অপরদিকে উখিয়া ও টেকনাফের রোহিঙ্গা ক্যাম্পে ঘূর্ণিঝড় মোকাবিলায় রামু ১০ পদাতিক ডিভিশনের সেনা বাহিনীর তত্ত্বাবধানে ১০ হাজার স্বেচ্ছাসেবক প্রস্তুত রাখা হয়েছে। জেলার রোহিঙ্গা ক্যাম্প গুলোতে সেনা বাহিনীর তত্ত্বাবধানে দুর্যোগ মোকাবিলার জন্য সেনাবাহিনী ও স্বেচ্ছাসেবকদের যৌথ মহড়া অনুষ্ঠিত হয়েছে। সেনা সদস্যদের নেতৃত্বে ক্যাম্পে সকল মাঝি ও প্রশিক্ষিত রোহিঙ্গা স্বেচ্ছাসেবকদের আপদ কালীন দায়িত্ব সম্পর্কে অবহিত করা হয়েছে। প্রশাসনকে সহযোগিতার লক্ষ্যে আশ্রয়কেন্দ্র চিহ্নিত করে রাখার পাশাপাশি সেনা বাহিনীর ব্যবস্থাপনায় কন্ট্রোল রুম চালু করা হয়েছে।

কক্সবাজারের বিভিন্ন জায়গায় সকাল থেকে হালকা ঝড়ো হাওয়া ও গুড়ি বৃষ্টি হয়েছে। ইতিমধ্যে সাগরে মাছ ধরার সকল ট্রলার উপকুলে ফিরে এসেছে। রিপোর্ট লিখা পর্যন্ত সাগরে কোন নৌ-দূর্ঘটনার সংবাদ পাওয়া যায়নি।

Please Share This Post in Your Social Media

More News Of This Category
© All rights reserved © 2021 Alokito Teknaf
Handicraft By SHAH