রবিবার, ০৩ জুলাই ২০২২, ০২:০৬ অপরাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম
টেকনাফে ৭ কোটি টাকার আইস ও ইয়াবা উদ্ধার, আটক ১ টেকনাফ স্থলবন্দর থেকে কর/শুল্ক ফাঁকি দিয়ে পাচারকালে ৭২লাখ টাকার অবৈধ মালামাল জব্দ- গ্রেফতার ৩ উখিয়ায় ৫০ হাজার ইয়াবা উদ্ধার : এক রোহিঙ্গাসহ তিন জন গ্রেফতার রোহিঙ্গা ক্যাম্পে নারী ও শিশু নির্যাতন রোধে ৮-এপিবিএন এর হটলাইন চমেক শিশু স্বাস্থ্য বিভাগের প্রধান হলেন অধ্যাপক ডা. রেজাউল করিম অবশেষে শুরু হচ্ছে টেকনাফ-কক্সবাজার সড়কের নির্মাণ কাজ উখিয়া ক্যাম্পে ডাকাতি প্রস্তুতিকালে অস্ত্রসহ ছয় রোহিঙ্গা গ্রেফতার বঙ্গোপসাগরে ভাসমান স্বর্ণ: বদলে দিতে পারে দেশের ভাগ্য! টেকনাফে পাহাড় থেকে অস্ত্রসহ ২ রোহিঙ্গা ডাকাত গ্রেফতার অপহৃত মিয়ানমারের দুই শিক্ষক বিজিপির নিকট হস্তান্তর

চট্টগ্রাম-কক্সবাজার মহাসড়কে মরণ ফাঁদ

Reporter Name
  • Update Time : বুধবার, ৮ আগস্ট, ২০১৮
  • ৩০২ Time View

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ-

চট্টগ্রাম-কক্সবাজার মহাসড়ক পর্যটন নগরী কক্সবাজার যাওয়ার একমাত্র যোগাযোগ মাধ্যম। কয়েক দিনের টানা বৃষ্টিপাতে চট্টগ্রাম-কক্সবাজার মহাসড়কটি লোহাগাড়া এলাকায় খানাখন্দে ভরে গিয়ে এখন মরণ ফাঁদ সৃষ্টি হয়েছে। বৃষ্টিপাত যত বাড়ছে মহাসড়কের পিস ঢালাই পাথর, বিটুমিনসহ উঠে বড়বড় গর্তের সৃষ্টি হচ্ছে। তাতেই অহরহ ঘটছে দুর্ঘটনা। দুর্ভোগের শেষ নেই। দুর্ঘটনার শিকার হচ্ছে হাজার হাজার বাস, ট্রাকসহ অসংখ্য গাড়ি।
সড়ক সংস্কারের কাজেরো কমতি নেই দোহাজারী সড়ক ও জনপথ বিভাগের (সওজ)। কিন্তু কি রকম সড়ক সংস্কার কাজ হচ্ছে জনমনে প্রশ্ন আছে? সড়ক সংস্কার যত করছে মহাসড়ক তত খানাখন্দে ভরে যাচ্ছে। নি¤œমানের ভিটুমিন দিয়ে সড়ক সংস্কারে কাজ করা হচ্ছে বলে অভিযোগ উঠেছে। বৃষ্টি থামার সঙ্গে সঙ্গে দোহাজারী সড়ক ও জনপথ (সওজ) বিভাগ সড়ক সংস্কারের কাজ শুরু করে। চট্টগ্রাম-কক্সবাজার মহাসড়কটি পর্যটন নগরী কক্সবাজার ও উখিয়া রোহিঙ্গা ক্যাম্পে যাওয়ার একমাত্র সড়ক। দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে পর্যটক ও রোাহিঙ্গা ক্যাম্পে যাওয়া বিভিন্ন সংস্থার লোকজনকে। সরেজমিন পরিদর্শনে গিয়ে দেখা যায়, লোহাগাড়া উপজেলার ঠাকুর দীঘি বাজার এলাকা থেকে চুনতির শেষ পর্যন্ত চট্টগ্রাম-কক্সবাজার মহাসড়কে হাজার হাজার গর্ত। নষ্ট হতে চলছে যানবাহন। মহাসড়কে দেখা গেছে গাড়ির চাকা নষ্ট হয়ে পড়ে আছে। বাসচালক আমান বলেন, প্রতিবছর বর্ষা আসলেই চট্টগ্রাম-কক্সবাজার মহাসড়কে দুর্ভোগের শেষ নেই। তিনি আরো বলেন, সড়ক সংস্কার করলেও বেশি দিন থাকে না। ক্ষোভ প্রকাশ করে তিনি আরো বলেন, এ দুর্ভোগের শেষ নেই। প্রতিদিন সংস্কার কাজ করা হচ্ছে সড়কে। তাও আবার নামে মাত্র। বৃষ্টি হলে তা উঠে যায়।
চট্টগ্রাম-কক্সবাজার মহাসড়কটি নতুন ব্রিজ থেকে শুরু করে খানাখন্দে ভরে গেছে। একদিকে সড়ক সংস্কারের কাজ চলছে, অন্যদিকে খানাখন্দে ভরে যাওয়ায় মিশ্র প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করছেন পথচারীরা। পথচারী ব্যবসায়ী আব্দুর জব্বার বলেন, মহাসড়কে সংস্কারের যেমন কমতি নেই, দুর্ভোগেরও শেষ নেই। যেমন কাজ তেমন নাশ! তিনি আরো বলেন, বৃষ্টি হলেও মহাসড়কে কাজ থেমে থাকে না সওজ বিভাগের। সে জন্যইতো মহাসড়ক খানাখন্দে ভরে যায় বৃষ্টি হলে। ব্যবসায়ী মো. ইসলাম বলেন, প্রায় সময় চট্টগ্রাম-কক্সবাজার মহাসড়ক খানাখন্দে ভরা থাকে। বৃষ্টি শুরু হলেই তার প্রতিকার শুরু হয়। খানাখন্দে ভরা চট্টগ্রাম-কক্সবাজার মহাসড়কের নিত্যদিনের সঙ্গী। এ ব্যাপারে দোহাজারী সড়ক ও জনপথ বিভাগ (সওজ) এর নির্বাহী প্রকৌশলী তোফায়েল হোসেন বলেন, সড়ক সংস্কার কাজ চলছে। বৃষ্টি থামলে সংস্কারের কাজ পুনরায় শুরু হবে। বৃষ্টি হলে গাড়ির ব্রেকের সঙ্গে সঙ্গে পাথর উঠে চাকার ঘষাতে ভেঙে যাচ্ছে সড়ক। সৃষ্টি হচ্ছে বড় বড় গর্ত। তিনি আরো বলেন, সংস্কার কাজে কোনো অনিয়ম নেই। কাজ শেষ হতে না হতেই বৃষ্টি শুরু হয়, তাতেই নষ্ট হয়ে যাচ্ছে সড়ক।

More News Of This Category
© All rights reserved © 2021 Alokito Teknaf
Handicraft By SHAH