শুক্রবার, ০১ জুলাই ২০২২, ০১:২১ পূর্বাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম
রোহিঙ্গা ক্যাম্পে নারী ও শিশু নির্যাতন রোধে ৮-এপিবিএন এর হটলাইন চমেক শিশু স্বাস্থ্য বিভাগের প্রধান হলেন অধ্যাপক ডা. রেজাউল করিম অবশেষে শুরু হচ্ছে টেকনাফ-কক্সবাজার সড়কের নির্মাণ কাজ উখিয়া ক্যাম্পে ডাকাতি প্রস্তুতিকালে অস্ত্রসহ ছয় রোহিঙ্গা গ্রেফতার বঙ্গোপসাগরে ভাসমান স্বর্ণ: বদলে দিতে পারে দেশের ভাগ্য! টেকনাফে পাহাড় থেকে অস্ত্রসহ ২ রোহিঙ্গা ডাকাত গ্রেফতার অপহৃত মিয়ানমারের দুই শিক্ষক বিজিপির নিকট হস্তান্তর উখিয়া রোহিঙ্গা সন্ত্রাসীদের গুলিতে তালিকাভূক্ত সন্ত্রাসী নিহত মিয়ানমার থেকে পাচারকালে ১কেজি আইসসহ পাচারকারী গ্রেফতার রোহিঙ্গা ক্যাম্পে ‍‍‌‌‌‌‌‍’বাড়ি চলো’ ক্যাম্পেইন চলছে

টেকনাফে আবাসিক হোটেল নামে মিনি পতিতালয় গুলোতে এইডস রোগী সৃষ্টির আশংকা

Reporter Name
  • Update Time : শনিবার, ১৫ সেপ্টেম্বর, ২০১৮
  • ৫০৭ Time View

সাইফুদ্দীন মোহাম্মদ মামুন, টেকনাফ থেকে :

টেকনাফের কয়েকটি আবাসিক হোটেল ও ভাড়া বাসায় রোহিঙ্গা তরুণী নিয়ে বেশ কিছু চক্র রমরমা অবৈধ ব্যবসা চালিয়ে যাচ্ছে বলে গুরুতর অভিযোগ উঠেছে। ক্যাম্প থেকে বিনা বাধায় নিরাপদ রোহিঙ্গাদের যাতায়াতের সুযোগ থাকায় এ অবস্থার সৃষ্টি হয়েছে।

রোহিঙ্গাদের মধ্যে ব্যাপক সংখ্যক পুরুষ মহিলা এইচআইভি ভাইরাসে আক্রান্ত। রোহিঙ্গা নারীদের সাথে স্থানীয় পুরষদের অবাধ মেলা মেশার কারণে আগামীতে টেকনাফে প্রচুর সংখ্যক এইডস রোগী সৃষ্টি হওয়ার আশংকা রয়েছে।

টেকনাফ পৌর শহরে প্রায় ১০ টি আবাসিক হোটেল ও অর্ধশত ভাড়া বাসা রয়েছে। এতে চিহ্নিত কয়েকটি ভাড়া বাসা ও কয়েকটি আবাসিক হোটেল বর্তমানে মিনি পতিতালয়ে পরিণত হয়েছে। কয়েকটি ভাড়া বাসাতে নারী এবং মদের জমজমাট আসর বসে বলেও জানা যায়।

বাস স্টেশন জামে মসজিদের সামনে দাঁড়ালে দেখা যায় বোরকা পরা স্মার্ট তরুণীরা চাঁদের গাড়ী,লেগুনা(   চারপোকা গাড়ী) , সিএনজি ও লোকাল বাস থেকে নেমে একা রিক্সা বা পায়ে হেঁটে ছুটে যায় গন্তব্যে। সন্ধ্যা হলে ঐসব তরুণীরা বাজার সওদা করে একই গাড়িতে করে হাঁসি মুখে আবার ফিরে যায় নিজ আলয়ে।

বাস স্টেশনের ব্যবসায়ীরা বলেন, আমাদের সামনের আবাসিক হোটেলে প্রতিদিন ১০ থেকে বিশ জন বোরকা পরা কম বয়সী নারী যাতায়ত করে এবং স্থানীয় অনেক যুবক ও মধ্য বয়সী লোকজনকে যেতে দেখা যায়। সেখানে তারা কি করে আমরা জানিনা।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক পান দোকানি বলেন, টেকনাফ খুব বেশী খারাপ হয়ে গেছে, ঐ হোটেলে রাত দিন পতিতা ও খদ্দের আসা যাওয়া করে। প্রায় সময় খুচরা ইয়াবা, মদ, গাজা খোঁজে।

তিনি আরো বলেন, আবাসিক হোটেলের মহিলা গুলো রোহিঙ্গা ক্যাম্প থেকে আসে, কিছু রাতে থাকে আর কিছু দিনে, এ সব অবৈধ কাজ প্রশাসন দেখেনা কেন।

এব্যপারে টেকনাফ মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) রনজিত বডুয়া বলেন- আবাসিক হোটেল ভিত্তিক অবৈধ ব্যবসা বন্ধে আমরা সতর্ক রয়েছি, বিষয়টি গুরুত্ব সহকারে আমলে নিয়ে অভিযান পরিচালনা করা হবে।

এদিকে, রোহিঙ্গাদের মধ্যে ব্যাপক সংখ্যক পুরুষ মহিলা এইচআইভি ভাইরাসে আক্রান্ত। রোহিঙ্গা নারীদের সাথে স্থানীয় পুরষদের অবাধ মেলা মেশার কারণে আগামীতে টেকনাফে প্রচুর সংখ্যক এইডস রোগী সৃষ্টি হওয়ার আশংকা রয়েছে।
কক্সবাজার  জেলা স্বাস্থ্য প্রশাসন ও রোহিঙ্গা শরণার্থী শিবিরের ব্যবস্থাপনা কর্তৃপক্ষের সূত্রে জানা গেছে, এখন পর্যন্ত প্রায় অর্ধশত এইডস আক্রান্ত ব্যক্তির মৃত্যু ঘটেছে। আরও প্রায় অর্ধশত আছেন মুমূর্ষু অবস্থায়।

কক্সবাজার জেলা সদর হাসপাতালের আবাসিক চিকিৎসা কর্মকর্তা (আরএমও) শাহীন  মো. আবদুর রহমান বলেন, ২০১৫ সালের ৩১ ডিসেম্বর থেকে এ পর্যন্ত কক্সবাজারে ৩৭৮ জন এইডস রোগী চিহ্নিত হয়েছে। তাঁদের মধ্যে ২৫৮ জন রোহিঙ্গা, ১২০ জন বাংলাদেশি। আক্রান্ত ব্যক্তিদের ১৬৫ জন পুরুষ, ১৬৪ জন নারী, ৪৮ জন শিশু এবং একজন তৃতীয় লিঙ্গের ব্যক্তি। এখন ২৭৩ জন চিকিৎসা নিচ্ছেন, যাঁদের ২১১ জন রোহিঙ্গা। বর্তমানে যাঁরা চিকিৎসা নিচ্ছেন, তাঁদের মধ্যে ৪০ জন মুমূর্ষু অবস্থায় আছেন বলে জানান তিনি।

জেলায় এইচআইভি/এইডস আক্রান্ত ব্যক্তিদের মধ্যে গত প্রায় আড়াই বছরে (২০১৫ সালের ৩১ ডিসেম্বরের পর থেকে এখন পর্যন্ত) মারা গেছেন ৫২ জন। তাঁদের মধ্যে ৩৮ জন বাংলাদেশি ও ১৪ জন রোহিঙ্গা। সর্বশেষ মারা গেছেন ৪৫ বছর বয়সী একজন রোহিঙ্গা নারী। তিনি গত বছর মিয়ানমার থেকে এসেছিলেন। আক্রান্ত ও মৃত বাংলাদেশিদের বেশির ভাগই কাজের সূত্রে মধ্যপ্রাচ্যে ছিলেন। ধারণা করা হয়, মধ্যপ্রাচ্যে থাকার সময় তাঁদের সংক্রমণ হয়েছে।

জেলা স্বাস্থ্য বিভাগের সূত্র জানায়, আক্রান্ত রোহিঙ্গাদের ২০ জনকে বাংলাদেশে আসার পর শনাক্ত করা হয়েছে। অন্যরা মিয়ানমারে থাকতেই তাঁদের সংক্রমণের বিষয়ে জানতেন। এখন পর্যন্ত কক্সবাজারে ৩৭৮ জন এইডস ভাইরাসে আক্রান্ত ব্যক্তি চিহ্নিত হয়েছেন। তাঁদের মধ্যে ২৫৮ জন রোহিঙ্গা, ১২০ জন বাংলাদেশি।

More News Of This Category
© All rights reserved © 2021 Alokito Teknaf
Handicraft By SHAH