মিজানুর রহমান

কক্সবাজারের টেকনাফে র্যাবের সাথে বন্দুকযুদ্ধে আলোচিত হাসেম বাহিনীর প্রধান হাসেম উল্লাহ (৩৩) নিহত হয়েছে। ঘটনাস্থল থেকে একটি বিদেশী পিস্তল, একটি দেশীয় তৈরি অস্ত্র ও গুলি উদ্ধার করা হয়েছে।  এসময় র্যাবের দুই সদস্য আহত হয়েছে বলে জানা গেছে। 

শুক্রবার  (১৬ জুলাই) ভোররাতে টেকনাফ উপজেলার জাদিমুড়া ২৭নং রোহিঙ্গা ক্যাম্প সংলগ্ন  পাহাড়ে বন্দুকযুদ্ধের এই ঘটনা ঘটে৷ 

নিহত রোহিঙ্গা ডাকাত জাদিমুড়া ২৭নং রোহিঙ্গা ক্যাম্পের সি ব্লকের বশির আহমদের ছেলে শীর্ষ ডাকাত হাশেম উল্লাহ বলে নিশ্চিত করেছেন র‍্যাব-১৫ এর উপ-অধিনায়ক মেজর মেহেদী হাসান।

র‍্যাব জানায়, শুক্রবার ভোরে টেকনাফ উপজেলার জাদিমুড়া ২৭নং রোহিঙ্গা ক্যাম্পে পাহাড়ের পাদদেশে ডাকাত দলের মধ্যে গুলাগুলির সংবাদ পেয়ে র‍্যাব ঘটনাস্থলে পৌঁছলে ডাকাতদল র‍্যাবকে লক্ষ্য করে গুলি ছুড়ে। এসময় র‍্যাবও আত্মরক্ষার্থে পাল্টা  গুলি ছুঁড়লে ডাকাতদল পিছু হটে। কিছুক্ষন পর পরিস্থিতি স্বাভাবিক হলে ঘটনাস্থল থেকে র‍্যাব দেশী বিদেশী দুটি অস্ত্র ও গুলিসহ গুলিবিদ্ধ অবস্থায় আহত এক রোহিঙ্গা ডাকাতকে উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

মৃতদেহটি পোস্টমর্টেমের জন্য কক্সবাজার জেলা সদর হাসপাতালে মর্গে প্রেরণ করা হয়েছে। এই ঘটনায় আইনী প্রক্রিয়া অব্যাহত রয়েছে বলে জানিয়েছেন র‍্যাবের এই কর্মকর্তা।

সূত্রে জানা যায়, নিহত হাশেম উল্লাহর নেতৃত্বে ক্যাম্প এবং ক্যাম্পের আশেপাশের এলাকায় অপহরণ,মুক্তি বাণিজ্য,ডাকাতিসহ ইয়াবা  ঘটনা বহুদিনের। সম্প্রীতি তার নেতৃত্বে ডাকাতদল বেপরোয়া হয়ে উঠে। এদিকে হাশেম উল্লাহ বন্দুকযুদ্ধে নিহতের খবরে রোহিঙ্গা এবং স্থানীয়দের মাঝে স্বস্থি দেখা দিয়েছে। 

নিহত এই রোহিঙ্গা ডাকাতের বিরুদ্ধে থানার মাদক, অপহরণ, মুক্তিপণ, ডাকাতিসহ ৫ টি মামলা রয়েছে বলেও জানা গেছে।