শুক্র. জুলা ৩, ২০২০

আলোকিত টেকনাফ

বিশ্বজুড়ে টেকনাফের প্রতিচ্ছবি

টেকনাফ স্থলবন্দরে ১ মাসে ১৩ কোটি টাকার রাজস্ব আদায়

১ min read

কক্সবাজারের টেকনাফে স্থলবন্দরে গত নভেম্বর মাসে সাড়ে ১৩ কোটি টাকার রাজস্ব আদায় হয়েছে। এই মাসে পেঁয়াজের আমদানি বৃদ্ধি পাওয়ায় রাজস্ব আদায় একটু কম হয়েছে বলে জানায় সংশ্লিষ্টরা।

রবিবার (১ ডিসেম্বর) রাতে টেকনাফ স্থলবন্দর শুল্ক কর্মকর্তা মো. আবছার উদ্দিন এক খুদে বার্তায় রাজস্ব আদায়ের এসব তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

তিনি বলেন, ২০১৯-২০ অর্থ বছরের নভেম্বর মাসে ৪৮৪টি বিল অব এন্ট্রির মাধ্যমে ১৩ কোটি ৫৩ লাখ ৬ হাজার টাকা রাজস্ব আদায় হয়েছে। এ মাসে জাতীয় রাজস্ব বোর্ড (এনবিআর) কর্তৃক মাসিক লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয় ১৩ কোটি ৫৫ লাখ ২৫ হাজার টাকা। যা নির্ধারিত মাসিক লক্ষ্যমাত্রার চেয়ে ২ লাখ ১৯ হাজার টাকা কম আদায় হয়। এ মাসে মিয়ানমার থেকে পণ্য আমদানি হয়েছে ১২৫ কোটি ৫৪ লাখ ৯৯ হাজার টাকার। বিশেষ করে এই মাসে পেঁয়াজ আমদানি হয়েছে ২১ হাজার ৫৬০ মেট্রিক টন। তবে পেঁয়াজ আমদানিতে রাজস্ব মওকুফ রয়েছে।

এছাড়া শাহপরীর দ্বীপ করিডোরে মিয়ানমার থেকে ৪২৩১টি গরু, ১৮৭৮টি মহিষ আমদানি করে ৩০ লাখ ৫৪ হাজার ৭০০ টাকা রাজস্ব আদায় হয়। অপর দিকে, ৪৯টি বিল অব এক্সপোর্টের মাধ্যমে মিয়ানমারে ২ কোটি ৪৩ হাজার টাকার পণ্য রপ্তানি করা হয়েছে।

তিনি আরও বলেন, গত মাসে পেঁয়াজ আমদানি বৃদ্ধি পাওয়ায় অন্যান্য পণ্য কম এসেছে। যার ফলে মাসিক রাজস্ব আদায় একটু কম হয়েছে। ব্যবসায়ীরা দেশের স্বার্থে পেঁয়াজ আমদানি করছেন। তবে অন্যান্য পণ্যের আমদানি বাড়াতে উৎসাহিত করা হচ্ছে বলে জানিয়েছেন।

স্থানীয় ব্যবসায়ীরা বলেন, ব্যবসার সুষ্ঠু পরিবেশ বিরাজ থাকলে পণ্য আমদানি বাড়বে। ব্যবসায়ীদের এখনো নানা সমস্যা পোহাতে হচ্ছে। এখনো বন্দরে পর্যাপ্ত শ্রমিক ও অবকাঠামোর অভাব বিরাজমান। এসব সমস্যাগুলো চিহ্নিত করে দ্রুত ব্যবস্থা নিতে হবে। এছাড়া বাণিজ্য ব্যবসাকে গতিশীল করতে দুই দেশের সমন্বিত উদ্যোগ জরুরি বলে মনে করেছেন তারা।

আপনার মন্তব্য দিন
error: বাণিজ্যিক উদ্দেশ্যে এই সাইটের কোন উপাদান ব্যবহার করা সম্পূর্ণভাবে নিষিদ্ধ এবং কপিরাইট আইনে দণ্ডনীয় অপরাধ।