বাড়িআলোকিত টেকনাফনামাজ পড়তে বের হয়ে লাশ হয়ে ঘরে ফিরল বৃদ্ধ নুরুল হক

নামাজ পড়তে বের হয়ে লাশ হয়ে ঘরে ফিরল বৃদ্ধ নুরুল হক

প্রধান প্রতিবেদক, আলোকিত টেকনাফ 

নিয়তির কি নির্মম পরিহাস, নামাজ শেষ করে আর ঘরে ফেরা হলোনা। ঘরে ফিরলেন লাশ হয়ে।  নুরুল হক। শাহপরীর দ্বীপ কোনার পাড়ার মৃত পোটান আলীর ছেলে। বয়স ৭০ ছুঁইছুঁই। মসজিদ আর ঘর এই মিলে তার জীবন। অনেক আগেই কাজ করার সক্ষমতা হারিয়েছেন। ইবাদত বন্দেগীর মাধ্যমে জীবনের অন্তিম মুহুর্তের প্রহর গুনছেন। 

তরুণ বয়স থেকে অনেক প্রতিবাদী ছিলেন। অন্যায়ের বিরুদ্ধে সারাজীবন প্রতিবাদ করেছেন। নির্যাতিতদের পক্ষে তার বলিষ্ঠ কণ্ঠস্বর সবসময় অন্যায়কারীদের আতংক ছিল। আর এটিই তার কাল হল। জীবনের শেষ দিন পর্যন্ত তিনি প্রতিবাদ করে গেছেন। 

প্রতিদিনের ন্যায় গতকাল ও মসজিদে আছর নামাজ পরতে গিয়েছিলেন। সুন্নাত ফরজ আদায় করতে পারলেন ঠিকই কিন্তু স্ত্রীকে যে ওয়াদা দিয়েছিলেন সেটি আর রক্ষা করতে পারলেন না। স্ত্রী নুর হাবা কে বলেছিলেন আজকে বেশী ক্ষুধা লাগছে, তাড়াতাড়ি রান্না করিও, একসাথে খাবো। একসাথে আর খাওয়া হলোনা ষাটোর্ধ্ব নুরুল হকের। এলাকার কিছু দুস্কৃতিকারী, চিন্তিত সন্ত্রাসীর ধারালো ছুরির আঘাতে জীবন দিতে হলো তাকে। 

নিহতের ছেলে বেলাল জানান, তার বাবা সোমবার (৮ নভেম্বর) সন্ধ্যায় মাগরিবের নামাজের পর বাড়ি ফেরার পথে একই এলাকার মোহাম্মদ হোসেনের ছেলে মো. ইয়াসিনসহ (২৮) তিন-চারজন পেছন থেকে ছুরিকাঘাত করে। আহত অবস্থায় তাকে উদ্ধার করে টেকনাফ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে আনা হলে চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন। জমি সংক্রান্ত বিরোধের জের ধরে এই হামলার ঘটনা বলে জানান তিনি।

এই রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত কক্সবাজার জেলা সদর হাসপাতালে নুরুল হকের ময়নাতদন্ত শেষ করা হয়েছে। মরদেহ  শাহপরীর দ্বীপ ডেইল পাড়া মসজিদে রাখা হয়েছে। আছরের নামাজের পরে জানাজা শেষে তাকে দাফন করা হবে বলে ও জানান বেলাল। এই ঘটনায় অভিযুক্ত ইয়াসিনসহ আরও কয়েকজনের নাম উল্লেখ করে মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে। 

এদিকে, স্বামীকে হারিয়ে পাগলপ্রায় স্ত্রী নুর হাবা। পাগলের ন্যায় বিলাপ করছে। তিনি স্বামী হত্যার বিচার চেয়েছেন। 

টেকনাফ মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোঃ হাফিজুর রহমান বলেন, ঘটনা সম্পর্কে অবগত আছি। লাশ ময়নাতদন্তের জন্য পাঠানো হয়েছে। তবে, লিখিত কোন অভিযোগ এখনো পাইনি। অভিযোগ পেলে তদন্ত সাপেক্ষে প্রয়োজনীয় আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। প্রকৃত দোষীদের আইনের আওতায় আনা হবে।

RELATED ARTICLES

Most Popular

Recent Comments