এম.জুবাইদ, পেকুয়া (কক্সবাজার)

অবশেষে কক্সবাজারের পেকুয়ার মগনামা-কুতুবদিয়া চ্যানেল থেকে অবৈধভাবে বালু উত্তোলন বন্ধে যৌথ অভিযান চালিয়েছে পেকুয়া উপজেলা প্রশাসন, পানি উন্নয়ন বোর্ড, পরিবেশ অধিদপ্তর ও উপকূলীয় বনবিভাগ চট্টগ্রাম দক্ষিণ।

শনিবার (৩ এপ্রিল) সন্ধ্যা ৭টার দিকে উপজেলার মগনামা ঘাটের উত্তর পাশে এ অভিযান পরিচালনা করা হয়।

এ সময় বালু উত্তোলনে ব্যবহৃত একটি ড্রেজার মেশিন, পাইপ ও উত্তোলিত ৮০ হাজার ঘনফুট বালু জব্দ করা হয়। এসময় মো. ইয়াসিন (৩২) নামের একজনকে আটক করা হয়েছে।

ইয়াসিন পিরোজপুর জেলার ভান্ডারিয়া উপজেলার ধাওয়া এলাকার আব্দুল জলিলের ছেলে।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোতাছেম বিল্যাহ, পরিবেশ অধিদপ্তর কক্সবাজার কার্যালয়ের উপ পরিচালক নাজমুল হুদা, পানি উন্নয়ন বোর্ড পেকুয়া জোনের কার্য সহকারী গিয়াস উদ্দিন ও উপকূলীয় বনবিভাগ মগনামা বিট কর্মকর্তা মোবারক হোসেনের নেতৃত্বে যৌথ এ অভিযান পরিচালনা করা হয়। এ সময় নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ইউএনও মোতাছেম বিল্যাহ বলেন, অবৈধভাবে বালু উত্তোলন বন্ধ করার জন্য এর আগেও আমরা বেশ কয়েকবার অভিযান চালিয়েছি। এরপরেও বালু উত্তোলন বন্ধ না হওয়াতে আজকে আমরা পানি উন্নয়ন বোর্ড, পরিবেশ অধিদপ্তর ও বনবিভাগকে সাথে নিয়ে যৌথ অভিযান চালিয়েছি। ইতোমধ্যে একজনকে আটক করা হয়েছে। তাছাড়া পাইপ, ড্রেজার মেশিন ও জব্দকৃত বালু পানি উন্নয়ন বোর্ডের জিম্মায় দেওয়া হয়েছে।

অভিযোগ পাওয়া গেছে, বাংলাদেশ নৌবাহিনী জাহাজ (বানৌজা) শেখ হাসিনা ঘাঁটি সংযোগ সড়ক সম্প্রসারণের কাজে প্রয়োজনীয় বালু সরবরাহের জন্য মার্চের প্রথম সপ্তাহে ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান মেসার্স জামিল ইকবাল এর পরিচালক মহসিন আহমেদ চৌধুরী বালু উত্তোলনের জন্য মগনামা ঘাটের উত্তর ও দক্ষিণ পাশে কুতুবদিয়া চ্যানেলের দুটি পয়েন্টে ড্রেজার মেশিন স্থাপন করে লবণাক্ত বালি উত্তোলন করে তা দিয়ে সড়কের কাজ চালিয়েছে।

তবে এ বিষয়ে অভিযুক্ত পক্ষের কারও কোন বক্তব্য পাওয়া যায়নি।