এম.জুবাইদ, পেকুয়া

কক্সবাজারের পেকুয়ায় টমটম ও সি এন জি অটোরিকশা মুখামুখি সংঘর্ষে মহিলাসহ ৯ জন  আহত হয়েছে। আহতদেরকে উদ্ধার করে পেকুয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। 

২৭ এপ্রিল বেলা ১২ টার দিকে এ বি সি আঞ্চলিক মহাসড়কের থানা ব্রীজের পাশে এ ঘটনা ঘটে।  প্রত্যক্ষদশীসূত্রে জানা যায়, পেকুয়া চৌমুহুনী হতে যাত্রীবাহি একটি টমটম কে এ বি সি আঞ্চলিক মহাসড়কের দক্ষিণ দিক থেকে চকরিয়া থেকে আসা যাত্রীবাহি একটি সি এন জি অটোরিকশা নিয়ন্ত্রন হারিয়ে মুখামুখি সংঘর্ষ হয়। এতে উভয় পরিবহনের চালকসহ ৯ জন আহত হয়।

আহতরা হলেন কক্সবাজারের ঘোনার পাড়া এলাকার মৃত লাল মোহাম্মদের স্ত্রী আছিয়া খাতুন, আব্দুল মোনাফের স্ত্রী গোলাপ জান,  গুরা মিয়ার পুত্র ছালামত উল্লাহ, পেকুয়ার শীলখালী কাচারীমুরা এলাকার মৃত জালাল আহমেদের পুত্র দানু মিয়া, চেগু মিয়ার পুত্র কালু,  বারবাকিয়া এলাকার শামসুর রহমানের পুত্র মাহামুদুর রহমান,মৃত জালালুদ্দিনের পুত্র জানু মিয়া, ঘোনার পাড়া ককসবাজার এলাকার ছালামত উল্লাহের পুত্র আনছার বেগম, মাতারবাড়ী এলাকার হাসান রফিক, পেকুয়া ঠান্ডা পাড়া এলাকার আবুল কাসেমের পুত্র সাজ্জাদ। এদিকে মাতারবাড়ী এলাকার হাসান রফিক ( সি এন জি অটোরিকশা চালক), জানু মিয়ার অবস্থাগুরুত্বর হলে তাদেরকে চমেকে প্রেরণ করে। আহত আনছার বেগম জানান, লকডাউনের কারণে গণ পরিবহন বন্ধ থাকায় আমরা চট্টগ্রাম মেডিকেলে সি এনজি অটোরিকশা করে চকরিয়া থেকে যাচ্ছিলাম এসময় পথিমধ্যে আমাদের সি এন জি অটোরিকশাটি আরেকটা টমটমকে ধাক্কা দেয়। এতে আমরা আহত হয়। গাড়ী দুইটি ধুমড়েচুসড়ে যায়। ঘটনার পর পরই পেকুয়া থানা এস আই ছিদ্দিকুর ঘটনাস্থলে গিয়ে গাড়ী জব্দ করে থানায় নিয়ে যায়।  
এ ব্যাপারে এস আই ছিদ্দিকুর রহমান বলেন গাড়ী জব্দ করা হয়েছে।  আহতদেরকে চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে।