সোমবার, ০৪ জুলাই ২০২২, ০৬:০৪ অপরাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম
কক্সবাজারে পুলিশের উপিস্থিতিতে ছাত্রলীগ নেতাকে কুপিয়ে হত্যা টেকনাফে ৭ কোটি টাকার আইস ও ইয়াবা উদ্ধার, আটক ১ টেকনাফ স্থলবন্দর থেকে কর/শুল্ক ফাঁকি দিয়ে পাচারকালে ৭২লাখ টাকার অবৈধ মালামাল জব্দ- গ্রেফতার ৩ উখিয়ায় ৫০ হাজার ইয়াবা উদ্ধার : এক রোহিঙ্গাসহ তিন জন গ্রেফতার রোহিঙ্গা ক্যাম্পে নারী ও শিশু নির্যাতন রোধে ৮-এপিবিএন এর হটলাইন চমেক শিশু স্বাস্থ্য বিভাগের প্রধান হলেন অধ্যাপক ডা. রেজাউল করিম অবশেষে শুরু হচ্ছে টেকনাফ-কক্সবাজার সড়কের নির্মাণ কাজ উখিয়া ক্যাম্পে ডাকাতি প্রস্তুতিকালে অস্ত্রসহ ছয় রোহিঙ্গা গ্রেফতার বঙ্গোপসাগরে ভাসমান স্বর্ণ: বদলে দিতে পারে দেশের ভাগ্য! টেকনাফে পাহাড় থেকে অস্ত্রসহ ২ রোহিঙ্গা ডাকাত গ্রেফতার

বার্ষিক প্রতিবেদন ২০১৭- ৯০% রোহিঙ্গাকে মানবিক সেবা দিয়েছে ব্র্যাক

Reporter Name
  • Update Time : শুক্রবার, ২৭ জুলাই, ২০১৮
  • ২৯২ Time View

আলোকিত টেকনাফ ডেস্কঃ-

২০১৭ সালে ব্র্যাকের বিভিন্ন সেবা কর্মসূচি ১১ কোটি মানুষের কাছে পৌঁছে দেয়া হয়েছে। এর মধ্যে মিয়ানমার থেকে বাংলাদেশে পালিয়ে আসা সাত লাখ রোহিঙ্গার মধ্যে ৬ লাখ ৭ হাজার ৫০০ জন সংস্থার আটটি মানবিক সহায়তা পেয়েছে। একই সঙ্গে ব্র্যাকের মাধ্যমে প্রায় ৭৫ হাজার ৬৫৮ খানার মানুষ অতিদারিদ্র্য অতিক্রম করেছে। এদিকে ২০১৬ সালের তুলনায় ২০১৭ সালে সংস্থার মোট আয় বেড়েছে প্রায় ১১ শতাংশ। পাশাপাশি প্রতিষ্ঠানটির বৈদেশিক সহায়তাও ১৫ শতাংশ বেড়েছে।

গতকাল রাজধানীতে আয়োজিত ব্র্যাকের বার্ষিক প্রতিবেদন ২০১৭-এর প্রকাশনা অনুষ্ঠানে এসব তথ্য জানানো হয়। অনুষ্ঠানে ব্র্যাকের নির্বাহী পরিচালক ডা. মুহাম্মাদ মুসা ও ঊর্ধ্বতন পরিচালক আসিফ সালেহ বক্তব্য রাখেন।

ডা. মুহাম্মাদ মুসা বলেন, মানুষের পাশে দাঁড়ানো, তাদের আশা দেয়া এবং বৈষম্যহীন সমাজ গঠনের পাশাপাশি মানুষের ভেতরের শক্তিকে জাগ্রত করার মূল মন্ত্রকে ধারণ করে ব্র্যাক তার কার্যক্রম পরিচালনা করছে। জাতীয় পঞ্চবার্ষিক পরিকল্পনা এবং টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যের (এসডিজি) সঙ্গে সামঞ্জস্যপূর্ণ আটটি ক্ষেত্রের ওপর বিশেষ গুরুত্ব আরোপ করা হয়েছে। এর মধ্যে রয়েছে— বাংলাদেশ থেকে অতিদারিদ্র্য দূরীকরণ, দরিদ্র মানুষের অর্থনৈতিক ক্ষমতায়ন, সুবিধাবঞ্চিত নারী ও পুরুষের জন্য দক্ষতা শিক্ষা এবং সম্মানজনক কাজের ব্যবস্থা, জলবায়ু পবিবর্তন, সহিষ্ণুতা ও মানবিক প্রয়োজনে সাড়া প্রদানের সামর্থ্য বৃদ্ধি, জেন্ডার সমতা, দরিদ্রবান্ধব নগর উন্নয়ন, সর্বজনীন স্বাস্থ্যসেবা প্রাপ্তি ও উন্নততর পুষ্টি, পরবর্তী প্রজন্মে বিনিয়োগ।

রোহিঙ্গাদের নিয়ে কী ধরনের চ্যালেঞ্জ রয়েছে এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, পাহাড় ধস, আর্থসামাজিক নানা ইস্যুতে স্থানীয় জনগণের সঙ্গে তাদের দ্বন্দ্ব শুরু হয়েছে। সর্বোপরি তাদের নিয়মতান্ত্রিকভাবে নিজ দেশে ফিরিয়ে দেয়াটাও একটা চ্যালেঞ্জ।

ডা. মুহাম্মাদ মুসা বলেন, ক্ষুদ্রঋণ দিয়ে যাত্রা শুরু করলেও এন্টারপ্রাইজ ব্যবসায় এখন বিনিয়োগ বাড়ানো হচ্ছে। অনুদানের অর্থ ছাড়াও বাজারভিত্তিক কর্মসূচি নেয়া হচ্ছে। এছাড়া শুধু বৈদেশিক অনুদানের ওপর নির্ভর না করে অর্থায়নের নানা সুযোগ কাজে লাগানো হচ্ছে। আর ব্র্যাকের মতো প্রতিষ্ঠানের স্বচ্ছতা ও জবাবদিহিতা বজায় রাখতেই আনুষ্ঠানিকভাবে প্রকাশ করা হচ্ছে বার্ষিক প্রতিবেদন।

ব্র্যাকের ঊর্ধ্বতন পরিচালক আসিফ সালেহ বলেন, ২০১৭ সালে প্রায় ৩৪ হাজার তরুণ-তরুণীকে দক্ষতা প্রশিক্ষণ ও কর্মসংস্থান বিষয়ে সহায়তা দিয়েছে ব্র্যাক। এছাড়াও সারা দেশে ব্র্যাকের প্রায় ৪৪ হাজার স্কুল ও শিক্ষাকেন্দ্রে ভর্তি হয়েছে ৩৮ লাখের বেশি শিশু এবং কিশোর-কিশোরী। প্রতি বছর নতুন ২২ লাখ তরুণ-তরুণী শ্রমবাজারে প্রবেশ করছে। এদের মধ্যে ৪১ শতাংশের যথাযথ শিক্ষা ও উপযুক্ত প্রশিক্ষণ নেই। তাই ব্র্যাক ২০২০ সাল নাগাদ শ্রমবাজারে আসা চার লাখ মানুষকে প্রশিক্ষণ দেয়ার লক্ষ্য নির্ধারণ করছে।

তিনি বলেন, ২০১৭ সালে ব্র্যাক ৫৭ লাখ ঋণগ্রহীতাকে আর্থিক সেবা প্রদান করেছে। পাশাপাশি ৩৩ হাজার ৯৮০ জনকে দক্ষতা প্রশিক্ষণ ও সম্মানজনক কর্মসংস্থানসহ ৬২ হাজার ৮৮৪ জন শ্রমিককে নিরাপদ অভিবাসন বিষয়ে পরামর্শ দিয়েছে। ১ লাখ ১০ হাজার ২৬৭ জন নারী প্রাকৃতিক ও মানবঘটিত দুর্যোগকালীন এবং এর আগে ও পরে সহায়তা পেয়েছে। তৃণমূল সংগঠনের ৪৮ হাজার ৭৬৬ নারী সদস্য স্থানীয় ক্ষমতাকাঠামোয় অংশ নিয়েছে। দুর্গম এলাকার ৯০ শতাংশ মানুষ স্বাস্থ্যসেবা পেয়েছে।

More News Of This Category
© All rights reserved © 2021 Alokito Teknaf
Handicraft By SHAH