স্টাফ করস্পন্ডেন্ট: আলোকিত টেকনাফ:-

টেকনাফ সদর উপজেলার মিঠাপানির ছড়ায় জনৈক আহমদ মিয়ার ভোগ দখলীয় ও মালিকানাধীন ওয়ারেশী ভিটি জমি নিয়া বিজ্ঞ অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিষ্ট্রেট আদালত, কক্সবাজারে বিগত ২৫/০২/১৯ইং এম আর ২৩৫/১৯ ইং ফৌঃকাঃবিধির ১৪৪ ধারার মামলা দায়ের করিলে বিজ্ঞ আদালত নালিশী জমিতে স্টাটাস ক্যু অর্থাৎ স্থিতি অবস্থা বজায় রাখার জন্য ওসি টেকনাফ থানাকে নির্দেশ প্রদান করেন। কিন্তুু দুদর্ষ শিবির ক্যাডার,ডাকু,সন্ত্রাসী,নিজ এলাকায় অবাঞ্ছিত আক্তার কামাল এবং মানব পাচারকারী, ইয়াবা গডফাদার ও স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের তালিকাভূক্ত ইয়াবা গডফাদার ও বন্দর স্বর্ণ চোরাচালান কারবাারি  আবুল কাসেম প্রঃডাবল কাসেমের 

নেতৃত্ব ও হুকুমে বিজ্ঞ আদালত কর্তৃক প্রদত্ত ১৪৪ ধারাকে মোটেও তোয়াক্কা না করিয়া সন্ত্রাসী বাহিনী নিয়া নালিশী জমিতে অবৈধ অনুপ্রবেশ করতঃজনৈক

আহমদ মিয়ার মালিকানাধীন ও ভোগ দখলীয় জমির ঘেরা বেড়া অদ্য ২৩/০৩/১৯ইং সকাল আনুমানিক ০৮ঃ০০ ঘটিকার সময় ভাঙ্গিয়া কমান্ডো স্টাইলে অন্যত্র সরাইয়া নিয়া উক্ত নালিশী জমি জোর পূর্বক জবর দখলের চেষ্ঠা করছে। এতে জমির মালিক জনৈক আহমদ মিয়া ও প্রবাসী ভাইয়ের স্ত্রী বাধা প্রদান করিতে গেলে বন্দুক, ধারালো কিরিছ ও মারাত্মক অস্ত্রশস্ত্র নিয়া প্রাণে হত্যার উদ্দেশ্য তাদের দিকে তেড়ে আসিলে প্রাণ রক্ষার্থে দৌড়ে পালাইয়া প্রানে বেচেঁ যায়।এই সন্ত্রাসী শিবির ক্যাডার আক্তার কামাল ও তার সহযোগী ডাবল কাসেম জনৈক আহমদ মিয়াসহ পরিবারের সদস্যদের ক্রমাগত হুমকি ধমকি ও ভয়ভীতি প্রদর্শন করিয়া আসিতেছে। তারা জায়গার মালিকসহ পরিবারের সদস্যদের মিথ্যা দিয়া হয়রানি করিবে এমনকি পরিবারের সদস্যদের অপহরণ করতঃহত্যা করিয়া লাশ গুম করিয়া ফেলিবে মর্মে শাসাচ্ছে। তাদের এহেন অন্যায় কর্মকান্ডে পরিবার পরিজন মারাত্মক অনিশ্চয়তায় দিনাতিপাত করিতেছে। এমতাবস্থায় জনৈক আহমদ মিয়া ও তার পরিবার পরিজন প্রশাসনের সার্বিক সহযোগিতা ও হস্তক্ষেপ কামনা করছেন সেই সাথে উপরোক্ত সন্ত্রাসী ও ভূমি দস্যূদের বিরুদ্ধে আইনী ব্যবস্থা নেয়ার জোর দাবী জানাচ্ছেন। অত্র ঘটনার ব্যাপারে মামলা মোকদ্দমাসহ আইনি আশ্রয় নেয়ার প্রস্তুতি নিচ্ছেন বলে জনৈক আহমদ মিয়া জানিয়েছেন।