সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে আমাকে জড়িয়ে মিথ্যা অপপ্রচারের তীব্র প্রতিবাদ ও নিন্দা জানাচ্ছি। আগামী ২০ সেপ্টেম্বর আসন্ন সাবরাং ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে আমি চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী। আমার ভোটাধিকার প্রয়োগে গতকাল ঢাকা থেকে সস্ত্রীক আমি আমার জন্মভুমি ও নির্বাচনী এলাকায় প্রবেশ করি।

আমি এই এলাকার সন্তান এবং সাবেক জনপ্রতিনিধি হিসেবে আমার গ্রহণযোগ্যতা ও জনপ্রিয়তা রয়েছে। আমার এলাকায় আসার খবরে আমার কর্মী ও সমর্থকেরা ব্যাপক গণসংবর্ধনা ও শোডাউনের আয়োজন করে। এই বিষয়টি অবগত হওয়ার সাথে সাথে আমি তাদেরকে নিষেধ করি। এবং শান্তিপুর্ণ সহ-অবস্থান বজায় রেখে নিজ নিজ এলাকায় নির্বাচনী প্রচার প্রচারণা চালিয়ে যাওয়ার নির্দেশ দিই।

আমি এলাকায় পৌঁছার খবরে আমার কর্মী ও সমর্থকদের মাঝে ব্যাপক উৎসাহ উদ্দীপনার সৃষ্টি হয়। আমাকে একনজর দেখতে বাড়ীর আশেপাশে বিপুল সংখ্যক নেতা-কর্মীরা অবস্থান নেয়। আমিও তাদের সাথে সাক্ষাৎ করতে বাড়ী থেকে বের হয়। আমাকে পেয়ে নেতা-কর্মীরা আবেগ-আপ্লূত হয়ে পরে। আমি তাদের শান্তনা দিই এবং আবারো শান্ত থাকার নির্দেশ দিই।

নেতা-কর্মীরা আমাকে তাদের মাঝে নিয়ে শ্লোগান দিতে দিতে সামনে এগিয়ে যেতে আমার ভাই ইউপি সদস্য প্রার্থী ফজলুল হক তার দলবল নিয়ে আমি ও আমার কর্মী সমর্থকের উপর হামলা করে এবং অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করে। উভয়ের মধ্যে কিছুক্ষণ ধাওয়া পাল্টার পর পরিস্থিতি শান্ত হয় এবং সবাই ঘটনাস্থল ত্যাগ করে।

পরবর্তীতে ফজলুল হক জনগনের কাজ থেকে সহানুভূতি আদায়ের জন্য আমার বিরুদ্ধে মিথ্যা অপপ্রচার চালাচ্ছে। আমি আমার কর্মী-সমর্থক ও সহকর্মীদের এই ব্যাপারে বিভ্রান্ত না হওয়ার অনুরোধ জানাচ্ছি। আমার বিররুদ্ধে মিথ্যা অপপ্রচারকারীদের বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা গ্রহণের প্রস্তুতি চলছে।

হাবিবুর রহমান
মিস্ত্রি পাড়া,শাহপরীরদ্বীপ।