ওসামা সুলতানা (অনু):-

পতিতার সাথে আনন্দ করে আসা পুরুষটিও আড়ালে গেলে মেয়েটিকে পতিতা বলে ঘৃণা করে!
কেন ছেলেটিকেও পতিতা উপাধি দেওয়া হয় না?
সে পুরুষ বলে?
ছেলে মেয়ে যদি সমান অধিকার হয় তবে মেয়েরাই কেন শুধু পতিতা উপাধি ধারণ করবে?
ছেলেরা কেন নয়?

একটা মেয়ে রোহিঙ্গা ক্যাম্পে চাকরী করলে নাকি তার পরিবারের মানসম্মান চলে যাবে!
আর বাড়ির পুরুষটি যদি তার জীবন সঙ্গীকে ধোঁকা দিয়ে পতিতালয়ে রাত্রিযাপন করে আসে,

তখন তার পরিবারের মানসম্মান কোথায় যায়?

দোষ শুধু মেয়েরা করেনা-ছেলেদের ও দোষ আছে।

কথায় আছে না “এক হাতে তালি বাজেনা” – এক্ষেত্রেও এক’ই।
ছেলে এবং মেয়ে দুজনেই সমান অপরাধী

সব মেয়েরা কিন্তু রোহিঙ্গা ক্যাম্পে চাকরী করে পরকিয়াই লিপ্ত হচ্ছে না!

একজন নারীর জন্য আজ গোটা নারী সমাজের কলঙ্ক।

একটা সমাজের সব মানুষ যেমন এক না ঠিক তেমনি সব মেয়েরাও এক না।

সমাজকে সঠিক পথে আনতে হলে আগে নিজেদের চিন্তাধারা পাল্টাতে হবে আমাদের।