শুক্রবার, ০১ জুলাই ২০২২, ০২:২৬ পূর্বাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম
রোহিঙ্গা ক্যাম্পে নারী ও শিশু নির্যাতন রোধে ৮-এপিবিএন এর হটলাইন চমেক শিশু স্বাস্থ্য বিভাগের প্রধান হলেন অধ্যাপক ডা. রেজাউল করিম অবশেষে শুরু হচ্ছে টেকনাফ-কক্সবাজার সড়কের নির্মাণ কাজ উখিয়া ক্যাম্পে ডাকাতি প্রস্তুতিকালে অস্ত্রসহ ছয় রোহিঙ্গা গ্রেফতার বঙ্গোপসাগরে ভাসমান স্বর্ণ: বদলে দিতে পারে দেশের ভাগ্য! টেকনাফে পাহাড় থেকে অস্ত্রসহ ২ রোহিঙ্গা ডাকাত গ্রেফতার অপহৃত মিয়ানমারের দুই শিক্ষক বিজিপির নিকট হস্তান্তর উখিয়া রোহিঙ্গা সন্ত্রাসীদের গুলিতে তালিকাভূক্ত সন্ত্রাসী নিহত মিয়ানমার থেকে পাচারকালে ১কেজি আইসসহ পাচারকারী গ্রেফতার রোহিঙ্গা ক্যাম্পে ‍‍‌‌‌‌‌‍’বাড়ি চলো’ ক্যাম্পেইন চলছে

টেকনাফ বাহারছড়ার হাবিব ১৩ বছর পর খুঁজে পেল পরিবার

Reporter Name
  • Update Time : মঙ্গলবার, ৫ জুন, ২০১৮
  • ২৭৯ Time View

নাওশাদ আনাচ শান্তঃ-

কক্সবাজার ব্লাড ডোনার’স সোসাইটির কল্যানে ১৩ বছর আগে হারিয়ে যাওয়া হাবিবক খুজে পেয়েছে তার পরিবার। ২০০৫ সালে মানসিক বিপর্যস্ত হাবিব হারিয়ে যান । অবশেষে দীর্ঘ ১৩ বছর পর   ৪ জুন সোমবার বাড়ি ফিরছেন হাবিবুর রহমান (৫০) । এনিয়ে টেকনাফের বাহারছড়া এলাকায় স্বজন ও প্রতিবেশীদের মধ্যে চলছে উল্লাস।

জানা যায়, গত ২৪ মে কে বা কারা মানষিক ভারসাম্যহীন হাবিবকে কক্সবাজার সদর হাসপাতালে রেখে চলে যায়। এরপর হাসপাতাল পুলিশ বক্সে দায়িত্বে থাকা কর্মকর্তা আপন হোসেন মানিক তাকে উদ্ধার করে কক্সবাজার ব্লাড ডোনার’স সোসাইটির কাছে দেয়। দীর্ঘ ১০ দিন যাবৎ ব্লাড ডোনার’স সোসাইটির কর্মকর্তা ও হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের নিবিড় পর্যবেক্ষণের পর প্রায় সুস্থ হাবিবুর রহমান।

কক্সবাজার ব্লাড ডোনার’স সোসাইটির কর্মকর্তারা তার পরিবারের খোঁজ পাওয়ার জন্য সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে বিভিন্ন স্ট্যাটাস দিতে থাকে। সেখানে হাবিবের ছবি দেখে তারই প্রতিবেশী এক যুবতী পরিবারকে খবর দেয়। এরপর তার স্ত্রী নাছিমা খাতুন কক্সবাজার ব্লাড ডোনার’স সোসাইটির সাথে যোগাযোগ করে। হাবিবের স্ত্রী তাকে নিয়ে সোমবার সকালে বাড়ির উদ্দেশ্যে রওনা হন।

হাবিবের স্ত্রী নাছিমা খাতুন জানান, ১৩ বছর আগে মানসিক ভারসাম্যহীন হাবিবকে বাড়িতে বন্দি রাখা হতো। কিন্তু সেখান থেকে বেরিয়ে কোথায়  হারিয়ে যায়। এরপর পর অনেক খোঁজাখুঁজির পরও তাকে পায়নি। কিন্তু এক প্রতিবেশী ফেসবুকে তার ছবি দেখে আমাকে খবর দেয়। পরে আমি তার খোঁজে কক্সবাজার আসি। এরপর কক্সবাজার ব্লাড ডোনার’স সোসাইটির লোকজন আমাকে তার কাছে নিয়ে আসে। আমরা একে অপরকে চিনতে পেরেছি। আমি আজ তাকে নিয়ে বাড়ি ফিরছি।

তিনি আরও জানান, হাবিবের একটা ছেলে আছে। তার বয়স এখন ১২ বছর। হাবিব যখন হারিয়ে যায় সে তখন খুবই ছোট ছিল। আজ সে তার বাবাকে ফিরে পাবে।

হাসপাতাল পুলিশ বক্সের ইনচার্জ আপন হোসেন মানিক জানান, আমি তাকে অজ্ঞাত হিসেবে পায়। এরপর কক্সবাজার ব্লাড ডোনার’স সোসাইটির মাধ্যমে তার চিকিৎসা পরিচালনা করি। জেলা  সদর হাসপাতালের সার্বিক সহযোগীতায় হাবিবুর রহমান আজ প্রায় সুস্থ।

কক্সবাজার ব্লাড ডোনার’স সোসাইটির কর্মকর্তা আশরাফুল হাসান নিশাদ বলেন, আমরা প্রতিনিয়ত অসংখ্যা রোগী পায়। কিন্তু হাবিব একদম ভিন্ন। কারণ ১৩ বছর ধরে তিনি নিখোঁজ ছিলেন। আজ তিনি প্রায় সুস্থ। তার স্ত্রী এসে তাকে নিয়ে যাচ্ছে। ১৩ বছর পর একটা মানুষ তার আপনজনের কাছে ফিরে যাচ্ছে।

কক্সবাজার জেলা সদর হাসপাতালের আবাসিক মেডিকেল অফিস ডা. শাহীন মো. আবদুর রহমান জানান, হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ তাকে সার্বক্ষণিক চিকিৎসা সেবা দিয়েছেন। বিশেষ করে ইন্টার্ন চিকিৎসকরা। তিনি সুস্থ হয়েছেন। তাকে পরিজনেরা নিয়ে গেছেন।

More News Of This Category
© All rights reserved © 2021 Alokito Teknaf
Handicraft By SHAH