নিউজ ডেস্কঃ-

শহীদ রমিজ উদ্দিন ক্যান্টনমেন্ট কজের দুই শিক্ষার্থী নিহত হওয়ার ঘটনায় ঢাকায় রবিবার থেকে নিরাপদ সড়কের দাবিতে শিক্ষার্থীরা আন্দোলন করতে থাকে। শিক্ষার্থীরা, সাধারণ জনগণ, পুলিশ, সাংবাদিক এমনকী মন্ত্রীর গাড়িও আটকে দেয় ভুল পথে চলা ও লাইসেন্স না থাকার কারণে।

এই শিক্ষার্থীদের সাময়িক এই চেকপোস্টে লাইসেন্স সাথে না থাকায় আটকে যান জাতীয় দলের ক্রিকেটার শাহাদত। পরে অবশ্য ছেড়ে দেওয়া হয় তাঁকে। এমনকী কেউ শিক্ষার্থীরা তার সাথে অশোভন কোনো আচরণও করেনি বলে তিনি নিজেই জানিয়েছেন। বৃহস্পতিবার বেলা ১১টার দিকে কাফরুলের ইব্রাহিমপুরে এই ঘটনা ঘটে।

নারায়ণগঞ্জের বাসা থেকে মিরপুরের শেরেবাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামের দিকে যাচ্ছিলেন এই ক্রিকেটার। সে সময় ঢাকা ক্যান্টনমেন্ট এলাকা পার হতেই অন্যান্য গাড়ির মতো শাহাদাতের গাড়িও থামায় আন্দোলনরত ছাত্ররা। গাড়িটি থামিয়ে ড্রাইভিং লাইসেন্স দেখতে চায় তারা।

শাহদাত জানান, ড্রাইভিং লাইসেন্স থাকলেও ওই মুহূর্তে সেটি তার সঙ্গে ছিল না। পুরো বিষয়টি বুঝিয়ে বলতেই ছাত্ররা তার গাড়িটি ছেড়ে দেয়। এমনকি পথে সম্ভাব্য ঝামেলা এড়াতে তার সাথে তিন শিক্ষার্থীকে দিয়ে দেওয়া হয়েছিল বলেও জানান। তারা শাহাদাতকে নিরাপদে মিরপুর স্টেডিয়ামে পৌঁছে দেয়।