সোমবার, ০৪ জুলাই ২০২২, ০৭:০৯ অপরাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম
কক্সবাজারে পুলিশের উপিস্থিতিতে ছাত্রলীগ নেতাকে কুপিয়ে হত্যা টেকনাফে ৭ কোটি টাকার আইস ও ইয়াবা উদ্ধার, আটক ১ টেকনাফ স্থলবন্দর থেকে কর/শুল্ক ফাঁকি দিয়ে পাচারকালে ৭২লাখ টাকার অবৈধ মালামাল জব্দ- গ্রেফতার ৩ উখিয়ায় ৫০ হাজার ইয়াবা উদ্ধার : এক রোহিঙ্গাসহ তিন জন গ্রেফতার রোহিঙ্গা ক্যাম্পে নারী ও শিশু নির্যাতন রোধে ৮-এপিবিএন এর হটলাইন চমেক শিশু স্বাস্থ্য বিভাগের প্রধান হলেন অধ্যাপক ডা. রেজাউল করিম অবশেষে শুরু হচ্ছে টেকনাফ-কক্সবাজার সড়কের নির্মাণ কাজ উখিয়া ক্যাম্পে ডাকাতি প্রস্তুতিকালে অস্ত্রসহ ছয় রোহিঙ্গা গ্রেফতার বঙ্গোপসাগরে ভাসমান স্বর্ণ: বদলে দিতে পারে দেশের ভাগ্য! টেকনাফে পাহাড় থেকে অস্ত্রসহ ২ রোহিঙ্গা ডাকাত গ্রেফতার

শিশুদের বিকাশে শব্দ দূষণ নিয়ন্ত্রণের দাবি

Reporter Name
  • Update Time : বুধবার, ২৫ এপ্রিল, ২০১৮
  • ৫২৮ Time View

নিজস্ব প্রতিবেদক:

ঢাকা শহরের প্রায় সব এলাকাতেই শব্দ গ্রহণযোগ্য মাত্রার চেয়ে দুই থেকে তিনগুণ বেশি। শব্দ দূষণে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে শিশুরা উল্লেখ করে শিশুদের সঠিক বিকাশে শব্দ দূষণ নিয়ন্ত্রণের দাবি জানিয়েছে বিভিন্ন পরিবেশবাদী সংগঠন।

বুধবার ধানমন্ডি আবাহনী মাঠের সামনে আন্তর্জাতিক শব্দ সচেতনতা দিবস উপলক্ষে আয়োজিত সমাবেশে এ দাবি জানানো হয়। জনস্বাস্থ্য, পরিবেশ এবং প্রকৃতির কল্যাণে শব্দ দূষণ নিয়ন্ত্রণে সচেতনতা সৃষ্টিতে ১৯৯৬ সাল থেকে ২৫ এপ্রিল বিশ্বব্যাপী আন্তর্জাতিক শব্দ সচেতনতা দিবস পালন করা হয়।

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা কর্তৃক ২০১৩ সালের গবেষণা অনুযায়ী, দেশের মোট জনসংখ্যার ২০ শতাংশ মানুষের শ্রবণশক্তি লোপ পেয়েছে, যার মধ্যে ২৬ শতাংশই হচ্ছে শিশু। শব্দ দূষণের কারণে শিশুরা কানে কম শোনা, শ্রবণশক্তি হারিয়ে ফেলা, হৃদরোগ, উচ্চ রক্তচাপ, স্থায়ী মাথাব্যথা, ক্ষুধামন্দা, অবসাদ, নিদ্রাহীনতাসহ নানাবিধ জটিল রোগে আক্রান্ত হচ্ছে।

সমাবেশে ওয়ার্ক ফর এ বেটার বাংলাদেশ ট্রাস্ট-এর মারুফ হোসেন বলেন, শহরের প্রায় সব এলাকাতেই শব্দ গ্রহণযোগ্য মাত্রার চেয়ে দুই থেকে তিনগুণ বেশি। শব্দ দূষণে হচ্ছে শিশুরা বেশি ভুক্তভোগী। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার গবেষণা মতে, দেশের মোট জনসংখ্যার ২০ শতাংশের শ্রবণশক্তি লোপ পেয়েছে, যার মধ্যে ২৬ শতাংশই হচ্ছে শিশু। এলাকাভিত্তিক কমিটি করে শব্দ দূষণ রোধে পদক্ষেপ নিতে হবে।

বাংলাদেশ পরিবেশ আন্দোলন (বাপা) এর যুগ্ম সম্পাদক ইকবাল হাবীব বলেন, যে কোনো দূষণ রোধে অসংখ্য আইন রয়েছে। কিন্তু ব্যক্তি, প্রাতিষ্ঠানিক এবং রাষ্ট্রীয়ভাবে সেই বিষয়ে সচেতন না হলে তা কোনো কাজে আসে না। শব্দ দূষণ রোধে আমাদের সবাইকে সচেষ্ট হতে হবে। জন আন্দোলন গড়ে তুলে শব্দ দূষণ প্রতিরোধ করতে হবে।

সমাবেশে সরকারি ও বেসরকারি অংশীদার প্রতিষ্ঠান সমূহের সমন্বয়ে যথাযথভাবে শব্দ দূষণ (নিয়ন্ত্রণ) বিধিমালা বাস্তবায়নসহ বিভিন্ন দাবি তুলে ধরা হয়।

সমাবেশে ওয়ার্ক ফর এ বেটার বাংলাদেশ ট্রাস্ট-এর সিনিয়র প্রকল্প কর্মকর্তা জিয়াউর রহমানের সঞ্চালনায় আরও বক্তব্য রাখেন স্ট্যামফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের পরিবেশ বিজ্ঞান বিভাগের চেয়ারম্যান, ড. আহমেদ কামরুজ্জামান, বাংলাদেশ পরিবেশ আন্দোলন বাপা-এর যুগ্ম সম্পাদক বিধান চন্দ্রপাল, বাংলাদেশ ঘুড়ি ফেডারেশনের সাধারণ সম্পাদক শাহজাহান মৃধা বেণু, ঢাকা আইডিয়াল ক্যাডেট স্কুলের প্রতিষ্ঠাতা ও চেয়ারম্যান এম এ মান্নান মনির, মাস্তুল ফাউন্ডেশনের মনির হোসেন নিশাত প্রমুখ।

বাংলাদেশ পরিবেশ আন্দোলন (বাপা), স্টামফোর্ড ইউনিভার্সিটি বাংলাদেশ, গ্রিন ভয়েস, মাস্তুল ফাউন্ডেশন, নাগরিক অধিকার সংরক্ষণ ফোরাম, বিসিএইচআরডি, সিএসডাব্লিউপিডি, রায়েরবাজার উচ্চ বিদ্যালয়, ধানমন্ডি কচিকণ্ঠ হাই স্কুল, ঢাকা আইডিয়াল ক্যাডেট স্কুল এবং ওয়ার্ক ফর এ বেটার বাংলাদেশ ট্রাস্ট সম্মিলিত উদ্যোগে সমাবেশটি অনুষ্ঠিত হয়।

  @জাগোনিউজ২৪.কম
More News Of This Category
© All rights reserved © 2021 Alokito Teknaf
Handicraft By SHAH