বৃহস্পতিবার, ০৭ জুলাই ২০২২, ১২:৫৫ অপরাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম
নববধূ সেজে ঢাকা থেকে ইয়াবা কিনতে এসে পুলিশের হাতে ধরা উখিয়া ক্যাম্পে অস্ত্র ও ইয়াবাসহ দুই রোহিঙ্গা গ্রেফতার কক্সবাজারে পুলিশের উপিস্থিতিতে ছাত্রলীগ নেতাকে কুপিয়ে হত্যা টেকনাফে ৭ কোটি টাকার আইস ও ইয়াবা উদ্ধার, আটক ১ টেকনাফ স্থলবন্দর থেকে কর/শুল্ক ফাঁকি দিয়ে পাচারকালে ৭২লাখ টাকার অবৈধ মালামাল জব্দ- গ্রেফতার ৩ উখিয়ায় ৫০ হাজার ইয়াবা উদ্ধার : এক রোহিঙ্গাসহ তিন জন গ্রেফতার রোহিঙ্গা ক্যাম্পে নারী ও শিশু নির্যাতন রোধে ৮-এপিবিএন এর হটলাইন চমেক শিশু স্বাস্থ্য বিভাগের প্রধান হলেন অধ্যাপক ডা. রেজাউল করিম অবশেষে শুরু হচ্ছে টেকনাফ-কক্সবাজার সড়কের নির্মাণ কাজ উখিয়া ক্যাম্পে ডাকাতি প্রস্তুতিকালে অস্ত্রসহ ছয় রোহিঙ্গা গ্রেফতার

কক্সবাজারে সব মেগা প্রকল্পই দৃশ্যমান

Reporter Name
  • Update Time : মঙ্গলবার, ২৩ জানুয়ারী, ২০১৮
  • ২৭৮ Time View

গত চার বছরে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কর্তৃক অগ্রাধীকার ভিত্তিতে কক্সবাজারকে ঘিরে নেয়া ২৫ মেগা উন্নয়ন প্রকল্পে বদলে যাচ্ছে কক্সবাজার। গৃহীত অধিকাংশ প্রকল্পই এখন দৃশ্যমান। বাস্তবায়ন হয়েছে মেরিন ড্রাইভ সড়ক নির্মাণ প্রকল্পটি।
গত চার বছরে সরকারের নেওয়া বিভিন্ন মেগা প্রকল্পের প্রায় প্রকল্পই আলোর মুখ দেখেছে। উন্নয়নের ক্ষেত্রে সরকার এখন কক্সবাজারকেই বেশি প্রাধান্য দিচ্ছে। বলতে গেলে কক্সবাজারকে উন্নয়ন ক্ষেত্র হিসেবে বেছে নিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। দ্বিতীয় মেয়াদে আওয়ামী লীগ পুণরায় ক্ষমতায় আসার পর থেকেই কক্সবাজারে উন্নয়নের জোয়ার শুরু হয়। শুধু কক্সবাজারেই ২৫টি মেগা প্রকল্প বাস্তবায়নের জন্য পরিকল্পনা গ্রহন করে সরকার। যা ধাপে ধাপের বাস্তবায়ন হচ্ছে।
কক্সবাজার জেলা প্রশাসন থেকে প্রাপ্ত তথ্যমতে সেনাবাহিনীর বাস্তবায়নে মেরিন ড্রাইভ সড়ক প্রকল্প কক্সবাজারের মানুষের একটি অন্যতম স্বপ্নের প্রকল্প। এই প্রকল্পটি সকল পর্যায় শেষ করে পুর্ণতা পেয়েছে। এই প্রকল্প বাস্তবায়নের কারণে কক্সবাজারের পর্যটন শিল্প আরো এক ধাপ এগিয়ে গেছে।
কক্সবাজার বিমানবন্দরকে আর্ন্তজাতিক বিমানবন্দরে উন্নীতকরণের কাজ। বিমানবন্দরের বর্তমান রানওয়ে ৬৭৭৫ ফুট থেকে বাড়িয়ে ৯০০০ ফুটে উন্নীত করা হয়েছে। এতে ব্যয় হয়েছে ১ হাজার ১২৩ কোটি ৩২ লাখ টাকা। তার মধ্যে ৪ হাজার ৪০৯টি ভূমিহীন পরিবারকে বাঁকখালী নদীর পূর্বপাশের খুরুশকুল ইউনিয়নে পুর্নবাসন প্রকল্পে যাতায়াতের জন্য বাঁকখালী নদীর উপর সংযোগ সড়ক নির্মাণের জন্য ২০০ কোটি টাকা ও পুর্নবাসন প্রকল্পের উন্নয়নের জন্য ২১০ কোটি টাকা বরাদ্ধ দেয়া হয়েছে যা অগ্রাধিকার ভিত্তিতে বাস্তবায়ন হচ্ছে।
দৃশ্যমান হয়েছে কক্সবাজার রেল লাইন প্রকল্প। ১৮ হাজার ৩৪ কোটি টাকা ব্যয়ে এ প্রকল্প বাস্তবায়ন হচ্ছে। দ্রুতগতিতে এগিয়ে যাচ্ছে কাজ।
মাতারবাড়ির কয়লা ভিত্তিক বিদ্যুৎ কেন্দ্র গৃহীত মেগা প্রকল্পের মধ্যে অন্যতম। ইতোমধ্যে ওই মেগা প্রকল্পের ১৮ ভাগ সম্পন্ন হয়েছে। দৃশ্যমান হয়েছে দোহাজারী থেকে কক্সবাজার পর্যন্ত রেল লাইন ও কক্সবাজার বিমান বন্দরকে আন্তর্জাতিক মানের উন্নিত করণের কাজ।
কোল পাওয়ার জেনারেশন কোম্পানি বাংলাদেশ লিমিটেড এর ‘মাতারবাড়ি তাপভিত্তিক কয়লা বিদ্যুৎ কেন্দ্র প্রকল্প এখন দৃশ্যমান। মহেশখালী উপজেলার মাতারবাড়ী ও ধলঘাটা মৌজায় বাংলাদেশ বিদ্যুৎ উন্নয়ন বোর্ড কর্তৃক ১ হাজার ২০০ মেগাওয়াট কয়লাভিত্তিক এই তাপ বিদ্যুৎ কেন্দ্র নির্মাণের জন্য ১ হাজার ৪১৪ দশমিক ৬৫ একর জমি অধিগ্রহণ করে। প্রকল্পটির শুরুতে ৩৬ হাজার কোটি টাকা ব্যয় নির্ধারণ করা হলেও এখন তা প্রায় ৫০ হাজার কোটি টাকায় উন্নিত হয়েছে। জাইকা ও বাংলাদেশ সরকার এ অর্থ ব্যয় করছে।
এ ছাড়া এল.এন.জি ও কয়লাভিত্তিক তাপবিদ্যুৎ কেন্দ্র নির্মাণের জন্য মহেশখালী উপজেলার ৬টি মৌজা হোয়ানক, হেতালিয়া, কালারমারছড়া, হরিয়ারছড়া, পানিরছড়া, অমাবশ্যাখালীর ৫ হাজার ৬৪৬ দশমিক ৯৫ একর জমি অধিগ্রহণের জন্য ইতোমধ্যে চূড়ান্ত অনুমোদন দেয় একনেক। এ প্রকল্পের জন্য জমি অধিগ্রহনের কার্যক্রম চুড়ান্ত হওয়ার পথে। মাতারবাড়িতে ৭০০ মেগাওয়াট আল্ট্রা সুপার ক্রিটিক্যাল কোল ফায়ার্ড নামে আরও একটি নতুন বিদ্যুৎ প্রকল্প বাস্তবায়ন হচ্ছে। এই প্রকল্পটি বাস্তবায়নের জন্য মহেশখালী উপজেলার মাতারবাড়ী মৌজায় ১ হাজার ২০০ একর জমি অগ্রিহণের জন্য প্রক্রিয়া সম্পন্ন হয়েছে।
এছাড়াও মহেশখালীতে স্থাপিত হচ্ছে ৫টি অর্থনৈতিক জোন। এগুলো হলো ১ হাজার ৭৮৪ একর জমির উপর ফ্রি ট্রেড জোন ১ হাজার ৪৩৮ একর জমির উপর মহেশখালী অর্থনৈতিক জোন ১ ৮২৬ একর জমির উপর মহেশখালী অর্থনৈতিক জোন ২ ৬৭০ একর জমির উপর মহেশখালী অর্থনৈতিক জোন ৩।
মাতারবাড়ি তাপভিত্তিক কয়লা বিদ্যুৎ কেন্দ্রের জন্য নির্মিত হচ্ছে ৮৪ কিলোমিটার দৈর্ঘ্য একটি সংযোগ সড়ক। এই সড়কটির নির্মাণ কাজ খুব শিগগিরই উদ্বোধন হবে। এ সড়কের জন্য জমি অধিগ্রহনের কার্যক্রম প্রক্রিয়াধীন রয়েছে।
এছাড়াও কক্সবাজারে বাস্তবায়নধীন রয়েছে শেখ কামাল আর্ন্তজাতিক স্টেডিয়াম, সমুদ্র গবেষণা ইনস্টিটিউট, মেডিকেল কলেজ, রামুতে দ্বিতীয় বিকেএসপি, ভেটেনারি বিশ্ববিদ্যালয়ের ক্যাম্পাস নির্মাণ, কোস্টগার্ডের স্টেশন নির্মাণসহ আরও বেশ কয়েকটি প্রকল্প।
জেলা প্রশাসক মোঃ আলী হোসেন জানান, মেগা প্রকল্প ছাড়াও কক্সবাজার জেলা উন্নয়নের শীর্ষে রয়েছে। গৃহীত প্রকল্পের সবকটিই এখন দৃশ্যমান। উন্নয়ন কার্যক্রম এখন তৃণমুলে পৌছেছে।
সংসদ সদস্য আশেক উল্লাহ রফিক জানান, প্রতিশ্রুতি নয়, উন্নয়ন প্রকল্প বাস্তবায়ন করাই প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার প্রধান লক্ষ্য। যেদিকেই থাকাই দেখা যাবে উন্নয়ন প্রকল্পের কাজ আর কাজ। বিগত সময়ে শুধু ফলক উম্মোচন করেই মানুষকে বোকা বানানো হয়েছে। সরকারের আন্তরিকতা থাকলে যেকোন প্রকল্প বাস্তবায়ন করা যায় তা প্রমান করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। সুত্রঃ দৈনিক কক্সবাজার

More News Of This Category
© All rights reserved © 2021 Alokito Teknaf
Handicraft By SHAH